মাজহার ইসলাম। তার মতে, “মানুষ সবাই ভালো না, আবার সবাই খারাপ না। ৫ টা আঙ্গুল সমান না”। শৈশবে আবার ফিরে গেলে নতুন করে পড়ালেখা শুরু করার ইচ্ছা তার । আজ কথা হচ্ছে তার সাথে ।

অফিসেই থাকি, অফিসেই খাই।

লিখেছেন...admin...মে 8, 2016 , 1:01 অপরাহ্ন

mz

খোশগল্প.কম: আপনি অন্যরকম গ্রুপে কতবছর ধরে কাজ করছো?

মাজহার: ২ বছর ধরে।

খোশগল্প.কম: এত মানুষের সাথে কাজ করার অভিজ্ঞতা কেমন তোমার?

মাজহার: আমি সকাল ৭ টায় ঘুম থেকে উঠি, গোসল করে রেডি হয়ে কাপ ধুই, কাপ মুছি। তারপর নাস্তা খাই। ভাইয়ারা আসলে চা দেই।

খোশগল্প.কম: এখানে মাস শেষে একটা রিক্রিয়েশন হাওয়ার হয়, আবার সবার জন্মদিনে তাকে অফিসের পক্ষ থেকে গিফট দেওয়া হয়, আপনার এ রকম কোন অভিজ্ঞতা?

মাজহার: আমার জন্মদিনে আমাকেও পুরস্কার দেওয়া হয়।

খোশগল্প.কম: বাড়িতে কে কে আছে?

মাজহার: আমার বাড়ি ময়মনসিংহে। বাড়িতে আমার মা আছে, বাবা নাই, বোন আছে আর বউ আছে । বোন ঢাকা থাকে।

খোশগল্প.কম: ময়মনসিংহে যান অফিসের ছুটির সময়গুলোতে?

মাজহার: ঈদে যাই, এরপর কোন ছুটি পেলে যাই।

খোশগল্প.কম: আপনি অন্যরকম গ্রুপে চাকরি না করলে কি করতেন?

মাজহার: আমি তাইলে অন্যকাজ করতাম। এইখানে বেশি ভালো আছি। সোহাগ ভাইয়া, লিটন ভাইয়া ভালো মানুষ।

খোশগল্প.কম: আপনার জীবনের স্বপ্ন  ছিল করার?

মাজহার: মা, বোন, আর বউকে নিয়ে সুখে থাকার।

খোশগল্প.কম: আপনার জীবনের কোন স্মরণীয় ঘটনা?

মাজহার: আমার বাবা অনেক ভালো জানত আমাকে, আমাকে অনেকে কিছু খাওয়াত। ছোটবেলায় আমাকে মাঠে নিয়ে যেত, বাজারে নিয়ে যেত। বাবা মারা যাওয়ার পর ঐ আনন্দ আর করতে পারি না।

খোশগল্প.কম: আপনার বাবা কবে মারা গেছেন?

মাজহার: ৩/৪ বছর আগে ।

খোশগল্প.কম: ঈদের সময়গুলো কেমন কাটে?

মাজহার: ভালোই কাটে আমার। ছোটবোনের জন্য জামাকাপড় নেই। মাকে টাকা দেই।

খোশগল্প.কম: আপনার ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা কি?

মাজহার: এখানে ভালোই আছি।

খোশগল্প.কম: ঢাকার মানুষের সাথে ময়মনসিংহের মানুষের মধ্যে কি কি পার্থক্য দেখা যায়?

মাজহার: ময়মনসিংহ থেকে অনেক বেশি মানুষ ঢাকায় কাজ করতে আসে, এখানে কাজ করলে বেশি টাকা পাওয়া যায়।

খোশগল্প.কম: আপনি কোথায় থাকেন?

মাজহার: অফিসেই থাকি, অফিসেই খাই।

খোশগল্প.কম: এমনিতেই আপনার অবসর সময় কিভাবে কাটে?

মাজহার: কাজ করেই, নাটক দেখি। নাটক দেখলে মজা লাগে।

খোশগল্প.কম: অফিসে সবার সাথে সম্পর্ক কি রকম?

মাজহার: সবার সাথে ভালো সম্পর্ক।

খোশগল্প.কম: আপনার কি মনে হয় না, পড়ালেখা করলে আরও ভালো হত?

মাজহার: আমি ছোটকালে স্কুলে যাইতাম, তারপর আব্বায় আর ফিস দিতে পারে নাই। এরপর আর যাই নাই। অনেক অভাব ছিল, আব্বার হাতে টাকা ছিল না। আব্বারে কইলাম পরীক্ষার ফিস দেন, আব্বায় দিল না। কইল পড়ালেখা বন্ধ করে দিতে।

খোশগল্প.কম: আপনি আবার শৈশবে ফিরে গেলে কি করতেন?

মাজহার: আবার পড়ালেখা করতাম, এখন বুঝতাছি পড়ালেখার অনেক দাম।

খোশগল্প.কম: আপনি কি ছোটবেলায় খেলাধুলা করতেন?

মাজহার: ক্রিকেট খেলতাম, ফুটবল খেলতাম। বেশি খেলতাম কাবাডি। বৃষ্টির সময় কাবাডি খেলতাম বেশি।

খোশগল্প.কম: আপনার জীবনের একটা দুঃখের গল্প বলেন?

মাজহার: আমি তখন মতিঝিলে চাকরি করতাম।  একবার মানিকনগরের দিকে যাচ্ছিলাম। তখন ৪/৫ ছেলে এসে আমাকে বলল, যা আছে দে। আমার কাছে মোবাইল আর টাকা ছিল। ওরা তাড়াহুড়া করে টাকা নিয়ে চলে যায়। পিছনের থেকে মানুষ আসছিল বইলা তাড়াতাড়ি চলে গেছে।

খোশগল্প.কম: মানুষ নিয়ে আপনার ভাবনা কি?

মাজহার: মানুষ সবাই ভালো না, আবার সবাই খারাপ না। ৫ টা আঙ্গুল সমান না।

খোশগল্প.কম: আপনি কাজের অনুপ্রেরণার পান কার কাছ থেকে?

মাজহার: সালমন ভাই আছে, আমি কাজ না পারলে দেখাইয়া দেয়। সফটওয়্যারের রায়হান ভাই কাজ না পারলে বলে এটা এভাবে এভাবে করতে বলে।

Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterShare on LinkedIn0Pin on Pinterest0

মতামত