লিপা(একজন গারো আদিবাসি)নাম তার লিপা।একজন গারো উপবাসী।সদা হাসতে থাকা এই মেয়ে বলল তার জীবনের কিছু কথা যা আমরা তার ভাষাতেই বলতে চেষ্টা করেছি…

আমরা মেয়েরা যেয়ে বর ঘরে নিয়ে আসি

লিখেছেন...admin...জানুয়ারী 12, 2016 , 4:53 অপরাহ্ন

12030375_155671654783997_7249761958770118742_o

খোশগল্প.কমঃআপু,নাম??

লিপাঃলিপা লুসি মানখিন।

 

খোশগল্প.কমঃআপনারা তো সম্ভবত ট্রাইভেল?
লিপাঃহ্যা।

 

খোশগল্প.কমঃতো কোন ট্রাইভেল এর সাইড টা থেকে আপনারা belong করেন??
লিপাঃগারো।

 

খোশগল্প.কমঃআচ্ছা আ;কেলের নাম কী?
লিপাঃপীযুস মানখীন।

 

খোশগল্প.কমঃআর আন্টির নাম??
লিপাঃউতপলা রাইমা।

খোশগল্প.কমঃআচ্ছা আমি যতদূর জানি আপনারা মাতৃ তান্ত্রিক সম্ভবত তাইনা?……
লিপাঃহ্যা।

 

খোশগল্প.কমঃতাহলে…মানখিন এটা তো সম্ভবত আংকেলের নামের টাইটেলে দেখলাম মানে এখানে কী কোনো twist আছে??
লিপাঃtwist বলতে আমার নানা যে উনি আগে পাকিস্তানের আমলে গারোদের মধ্যে সবথেকে বড় অফিসার ছিলো তো সে চাইতো যে তার নামের পরিচয়ে তার সন্তানেরা পরিচিতো হবে তো মাতৃ তান্ত্রিক অনুসারে মায়ের নামের টাইটেল হওয়ার কথা ছিলো দিব্রা তো সে মাকে দিয়ে দিছে রেমা তো ওখান থেকে আমিও……মার তো দিব্রা রেমা মাঝামাঝি অবস্থায়,এমনিতে ওরজিনালী হচ্ছে দিব্রা কিন্তু সারটিফিকেট এ দেয়া আছে রেমা এজন্য আমরা বাবার টাইটেল টা নেয়া।

 

খোশগল্প.কমঃও আচ্ছা তো আপনারা কয় ভাইবোন???
লিপাঃএক ভাই,এক বোন।

 

খোশগল্প.কমঃআপনি কিসে পড়াশুনা করছেন??
লিপাঃআমি ঢাকা ইউনিভারসিটি তে ট্যুরিজম এন্ড হসপিটালিটি ডিপার্টমেন্টে থার্ড ইয়ারে পরছি।

 

খোশগল্প.কমঃথার্ড ইয়ারে…সো আপনার হোমটাউন কই?
লিপাঃআমার হোমটাউন ময়মনসি;হ।

 

খোশগল্প.কমঃআচ্ছা গারোদের মেজরিটি কী ময়মনসিংহতে বেশি??
লিপাঃহ্যা হ্যা,ময়মনসি;হে ওদিকে টাংগাইল মধুপুরের সাইডে,বিরিসিড়ির ওদিকে।

 

খোশগল্প.কমঃমানে ওদিকে কী শুধু গারোরাই না অন্য ট্রাইভেল রাও আছে?
লিপাঃহ্যা অন্য ট্রাইভেল রাও আছে যেমন হাজ;,বানাই তারপরে হুদি ওরাও আছে।

 

খোশগল্প.কমঃআচ্ছা তো এতদূর পড়াশুনা করতে আসার উদ্দেশ্য টা কী কারন যতদূর জানি আপনারা may b একটু রিজার্ভ হয়েই থাকেন বা চেষ্টা করেন বা ইদানী; যেটা দেখা যাচ্ছে যে সবাই বাহিরে যাচ্ছে পড়াশুনা করছে মানে হঠাত করে এভাবে সবার বের হওয়া এটা কিভাবে??
লিপাঃআসলে বাইরে যাওয়া টা পড়াশুনার খাতিরেই আমরা তো ছোট থেকে বড় হইছি শহরে তো আমরা এখন অনেকটাই এগিয়ে আসছি মানে যতোটা ভাবা হয় ততটা পিছনেও না।এটা আসলে ভুল ধারনা যে পিছনে পড়ে আছি আমরা আমাদের খাতিরেই যথেষ্ট আগায় আসছি এব; এখন দেখা যায় আমরা টাউনেই বেশি গ্রামের তুলনায়।

 

খোশগল্প.কমঃআচ্ছা ট্যুরিজম এন্ড হসপিটালিটি ম্যানেজমেন্ট!!এটাতো সম্ভবত বিবিএর সাবজেক্ট তো আপনা্র কী এখানেই পরার ইচ্ছা ছিলো??
লিপাঃনা আসলে এটাতে পড়ার ইচ্ছা ছিলো না,এগুলো তো আসলে মেধাভিত্তিক সাবজেকট,আর চয়েস দিতে হয়,তো চয়েসে তো প্রথমে মার্কেটিং ছিল তারপর ব্যাংকিং তারপর ম্যানেজমেন্ট সবার লাস্টে দিয়েছিলাম ট্যুরিজম…

 

খোশগল্প.কমঃআচ্ছা তো যাক বিবিএ পড়ার ইচ্ছা ছিল সেটা এটলিস্ট পূরন হইছে
লিপাঃহ্যা তা তো হইছেই যেহেতু নাইন,টেন কমার্স ইন্টারেও কমার্স সেহেতু বিবিএ তেই পড়াই ইচ্ছা ছিল।

 

খোশগল্প.কমঃহুম সেটাইএটলিস্ট যেটা ইচ্ছে ছিলো ওটা ফুলফিল হইছে
লিপাঃহ্যা তা তো অবশ্যই।

 

খোশগল্প.কমঃআচ্ছা এখন আসি গারো ভিত্তিক কিছু প্রশ্নে যেটা ইন্টারেস্ট আর কীআপনাদের বিশেষ খাবার কোন গুলো মানে যেগুলো বিভিন্ন অনুষ্ঠানে রান্না করা হয় যেটা আমরা বাঙ্গালীরা বেসিকালী খাইনা?
লিপাঃহুম খারি যেটা শুটকি দিয়ে রান্না করা হয় যেটায় কোন তেল use করা হয়না,খাবার সোডা শুটকী পেঁয়াজ আর সবজী use করা হয়।

 

খোশগল্প.কমঃযা শুনলাম তাতে তো মনে হয় খাবার টা অনেক healthyতেল,মসলা অনেক কম
লিপাঃহুম তেল মসলা তো নাই healthy খাবার একদম।

 

খোশগল্প.কমঃআচ্ছা এটা কী কোন occasion এ রান্না করা হয়?
লিপাঃহুম occasion এও হয়,occasion এ আসলে যে আমরা শূকরের মাংস খাই ওটা দিয়েও খারি রান্না করা হয়,মাংসের ক্ষেত্রে কোন রকম শুটকী ব্যবহার করা হয় না আর অন্যান্য সবজীর সাথে মাছ আর সাথে সাথে শুটকী ব্যবহার করা হয় আর occasion ছাড়াও নরমালি বাসায় এগুলো খাওয়া হয়।

 

খোশগল্প.কমঃআর dress??মানে আলাদা কোন dress আছে আপনাদের?
লিপাঃহ্যা।আমাদের dress আছে আলাদা একটা যেটাকে বলে দকমান্দা।

 

খোশগল্প.কমঃএটা কেমন??এটার স্পেশালিটি কী??
লিপাঃস্পেশালিটি হচ্ছে লুঙ্গী যেমন থাকে মানে প্রথমে থাকে যে সেলাই করা থাকেনা,সেলাই করে নিতে হয় অনেকটা এমনি যে প্যাঁচায় পরতে হয়।

 

খোশগল্প.কমঃআচ্ছা এটাকে কী বললেন দকমান্দা বলে
লিপাঃহুম দকমান্দা।

 

খোশগল্প.কমঃআর হচ্ছে যে ধর্মীয় অনুষ্ঠান যেগুলা সেগুলো তো ঠিকই আছে যে আপনারা তো সম্ভবত খ্রীস্টানতো ধর্মীয় অনুষ্ঠান তো সেগুলোই এছাড়া সাম্প্রদায়িক ভিত্তিক আপনাদের কী কী অনুষ্ঠান আছে??
লিপাঃহুম আছে ওটার নাম মানগালা।

 

খোশগল্প.কমঃএই অনুষ্ঠানটা আসলে কী??
লিপাঃএটা হচ্ছে বছরে প্রথম যখন ধান ওঠে ধরেন নভেম্বর দিসেম্বর এর দিকে যখন ধান উঠে……

 

খোশগল্প.কমঃএটা কি আসলে আমাদের নবান্নের মতো?
লিপাঃহুম অনেকটাই তখন যে ধান টা ওঠে ওসময় আমাদের এই অনুষ্ঠান টা হয়।

 

খোশগল্প.কমঃএই একটাই কী??আর……
লিপাঃএছাড়া আদিবাসী দিবস তো হচ্ছেই,আর সেরকম কিছু নাই।

 

খোশগল্প.কমঃতো ময়মনসি;হ যেহেতু টাউনে বাসা তো communication এর ব্যাপার টা বাঙ্গালীদের সাথে কীভাবে হয়?মানে এটা কী বাসা থেকেই করে দেয়া না স্কুলে যেয়ে একসাথে পরতে হয় তাই আর কী communication টা বাড়ানো?
লিপাঃস্কুলে যেয়ে পড়ছি বা পড়তে হয়,বাঙ্গালী বন্ধুদের সাথে কথা বলতে হয় এজন্যই হয়তো বাংলা টা ভালো করে বলতে পারি আমার কিছু ছোট বোন আছে আরকি কাজিন যারা ওরা গারোদের মিশনারী স্কুলে পড়ছে আর তারা হচ্ছে গ্রামে থেকে অদের কিন্তু বাংলা বলতে অনেক প্রবলেম হয় কারন ছোট বেলা থেকে স্কুলের বাইরে তারা এতোটা বাংলা ব্যবহার করেনা যার কারনে তারা যখন লোক সমাজে যায় তখন কিন্তু তাদের communication এ অনেক ঝামেলা হয়।

 

খোশগল্প.কমঃতাহলে তো বলা যায় ফ্যামিলী influence টাই এখানে বেশিকারন ওখান থেকেই অনেক বেশি support দিছেআচ্ছা কখনো কী মনে আপনারা যারা গারো বা ধরেন ট্রাইভেল যারা কখনো কী মনে হইছে আপনাদের রাইটস গুলো আপনারা কিছুটা কম পাচ্ছেন বাঙ্গালিদের তুলনায়??
লিপাঃহুম তা তো মনে হয়।অনেকক্ষে্ত্রেই,যেমন ধরেন গ্রাম এলাকায় বিভিন্ন এলাকায় জমি যে বিক্রি হয় লিখিতো থাকেনা তখন হয়তো সেগুলা অবৈধ দখল করে নিচ্ছে আর এখন দেখা যায় রেপের ব্যাপার টা যেখানে অপরাধীকে দেখা যাচ্ছে তাকে ধরাও হইছে,কিছুদিন আগে যেটা হইলো বাড্ডায় রেপের ব্যাপার টা।

 

খোশগল্প.কমঃওটাতো একটা গারো মেয়ে ছিলো তাইনা?
লিপাঃজী জী গারো মেয়ে,ভিডিও ফুটেজ দেখাও গেছে কে রেপ করছে তাদের কে শুধু ধরাই হইছে বলছে আর একজন কে তো খুজেও পাওয়া যায়নি আর যাদের ধরা হইছে তারা তো এখনো রিমান্ডে কোন রেজাল্ট এখনো পাওয়া যায়নি

 

খোশগল্প.কমঃআচ্ছা এটা কী মনে হয় আপনারাও অনেক বেশী টিজিং ফেস করতেছেন কিন্তু সেগুলো মিডিয়ার সামনে আসছে না?
লিপাঃহুম খুব বড় কিছু না হলে তো আসেইনা।

 

খোশগল্প.কমঃআবার এমন ও কথা কানে আসে যে বাঙ্গালী ছেলেরাই এধরনের কাজ গুলো বেশি করতেছে কারন কী সেটাই যে আপনাদের মেজরিটি কম বা এমন কিছু?
লিপাঃআসলে ব্যতিক্রম মানুষের প্রতি সবারি আগ্রহ থাকে আমরা গারো মেয়েরা একটু গরনেও ব্যতিক্রম,চেহেরের দিক থেকে গায়ের রঙ এর দিক থেকে সব দিক থেকেই ব্যতিক্রম এটাও কারন হতে পারে।

 

খোশগল্প.কমঃআচ্ছা আপনারা এটা নিয়ে কোন প্রতিবাদ বা স্টেপ নেন নি ওই যে যেই মেয়েটা রেপ হলো তার জন্য?
লিপাঃকরা হইছে।শাহবাগ,প্রেস ক্লাব,রাজু ভাস্কর্যে মানব বন্ধন করেছি অনেক বার অনেক কিছু করা হইছে মিডিয়া তে যাওয়া হচ্ছে কিন্তু লাভ আসলে কিছুতেই কিছু হচ্ছে না ওই রিমান্ডে আছে এটুকুই যা।

 

খোশগল্প.কমঃএছাড়াও এটা যে শুধু গারো মেয়েরা তাই না আমাদের ভেতর ও অনেক মেয়ে আছে বা কিছু হলেই দেখা যাচ্ছে আমাদের দৌড় ওই রাজুভাস্কর্যে মোমবাতি হাতে নিয়ে দাড়ায় থাকা পর্যন্তই এর বেশি কিন্তু আমরা কিছুই করতে পারিনা এখন এ সম্পরকে আপনার কী মতামত এখানে আমাদের মেয়েদেরি কী সচেতন হওয়া দরকার কারন পুরুষসমাজ থেকেও যে আমরা খুব বেশি হেল্প পাচ্ছি তাও তো বলতে পারছিনা
লিপাঃশুধু একটা মেয়ে সচেতন হয়ে কী করবে?গত বছর পহেলা বৈশাখ এ একটা মেয়ে রেপ হয়।গারলফ্রেন্ড বয়ফ্রেন্ড যাচ্ছিলো রাত ৯ টা বাজে তখন সেই সময় মেয়েটাকে গাড়িতে তুলে নিয়ে রেপ করা হয় পরে যখন এটা পুলিশ কেস হয়ে যায় তখন পুলিশরাই বলে যে ব্যাপার টা আপনারা মিটমাট করে ফেলেন কারন যদি এটা ছড়ি্যে যায় তাহলে তো মেয়ের দুর্নাম,মেয়ের কিন্তু এমনিই দুরনাম কারন আমরা হলাম ছোট কম্যুনিটির এখানে যদি একজনের কিছু হয় আমরা হয়তো সবাই তা জেনেই যাই পরে ওসি বলে আপনারা বিয়ে করে ফেলেন যদিও তখন সেই ছেলে বা মেয়ে কারোরই বিয়ের বয়স হয়নি।পরে তারা বিয়ে করে কারন যারা ওকে রেপ করে তারা প্রভাবশালী ছিলো।ওদের কোন বিচার হয়নাই ইভেন ওদের কিছুই হয়নাই।

 

খোশগল্প.কমঃআচ্ছা রেপ যারা করছে তারা কী আপনাদের কম্যুনিটির?
লিপাঃনা না তারা বাঙ্গালী।আমি এতোবড় হইছি আজ পর্যন্ত এটা শুনিনি যে কোন গারো ছেলে কোন গারো মেয়েকে টীজ করছে বা রেপ করছে কারন আমরা একে অন্যকে চিনি যেমন আমি হলাম দিব্রা টাইটেল এর সেহেতু কোন ছেলে যদি অপরিচিতও হয় কিন্তু দিব্রা টাইটেল এর তাহলে সেও আমার ভাই হয়ে যাবে।

 

খোশগল্প.কমঃআপনাদের এই জিনিস্টা বেশ interesting.এখন যেটা আপনাদের ভেতর বিয়ের রিতী টা কেমন?আমাদের ভেতর যেমন পুরুষতান্ত্রিক সমাজে ছেলেরা যেয়ে বিয়ে করে নিয়ে আসে আপনাদের এই রিচুয়াল গুলো কেমন বা সহায় সম্পত্তির ব্যাপার দেখা যাচ্ছে বাবার টা ছেলেরা পাচ্ছে,মেয়েরা হয়তো অল্প কিছু পাচ্ছে আপনাদের সেগুলো কেমন?
লিপাঃactually আমরা তো মাতৃতান্ত্রিক তো আমাদের বেলায় ব্যাপারগুলো উল্টো হয় আমরা মেয়েরা যেয়ে দেখা যায় বর নিয়ে আসি এটাকে ঘরজামাই বলে আমরা ঘরজামাই নিয়ে আসি বিয়ের রীতি একইভাবে হয়,বাগদান হয়,আংটি বদল হয় যেটাকে বলে পান চিনি পরে তার পরেরদিন ছেলেকে বাসায় নিয়ে এসে বিয়ে পড়ানো হয়।

 

খোশগল্প.কমঃআর সম্পত্তির ব্যাপার গুলো?
লিপাঃএখানে আমাদের মেয়েদের priority বেশি ছেলে যদি ৪০% পায় তবে মেয়েরা পাবে ৬০%।মেয়েরা সবকিছুতেই ছেলেদের বেশি।

 

খোশগল্প.কমঃঠিক আছে তো গারো ভাষা তো অবশ্যই আমাদের ভাষা থেকে আলাদা এক লাইন যদি কিছু আপনাদের ভাষায় বলতেন……
লিপাঃকী বলব তার থেকে আপনি বাংলায় বলেন আমি সেটা গারো ভাষায় বলি।

 

খোশগল্প.কমঃআচ্ছা তুমি কেমন আছ???
লিপাঃনামি দঙ্গামা?

 

খোশগল্প.কমঃনামি দগামা?
লিপাঃদন-গামা…

 

খোশগল্প.কমঃআচ্ছা মানে এর ব্যবহার টা একটু বেশি…
লিপাঃহ্যা হ্যা।

 

খোশগল্প.কমঃআর আপনাদের তো মনে হয় গান নাচে অনেক বেশি প্রভাবিত করা হয়তো আপনি কী গান নাচ করেন??
লিপাঃহ্যা করি।

 

খোশগল্প.কমঃপ্রফেশনালী??
লিপাঃতা বলতে ছোট থেকেই বিভিন্ন জায়গায় তারপর ডিপার্টমেন্টে,কারো বিয়ে হলে ছোট থেকেই তো বাবা মা নাচ শেখাতো তো বিভিন্ন অনুষ্ঠানে এসব জায়গায় করি।

 

খোশগল্প.কমঃআপনার কাজিন রাও??? মানে সবাই?
লিপাঃহ্যা সবাই মানে হয় কী যখন কারো বিয়ে হয় বা বড়দিনে বিভিন্ন প্রোগ্রাম অরগানাইজ করা হয় দেখা যায় আমাদের যারা গারো কম্যুনিটি বা আদিবাসী তাদের সবার ই গান নাচের প্রতি ঝোঁক অনেক বেশি থাকে।

 

খোশগল্প.কমঃহুম তা অবশ্যি তবে তার কী কোন specific কারন আছে?
লিপাঃনা সেরকম কোন করন নাই তবে বলতে পারেন নিজেদের ট্র্যাডিশন টাকে ধরে রাখা।

 

খোশগল্প.কমঃআচ্ছা তো আপনাদের মাঝে মোটামুটি মিক্সিং এর ব্যাপার চলে আসছে কিছু কিছু বাঙ্গালীদের ট্র্যাডিশন কিছু কিছু আপনাদের,তো কখনো কী মনে হয় যে আমাদের ভীরে আপনাদের ট্র্যাডিশন টা কিছু হলেও হারায় যাচ্ছে?
লিপাঃহারায় তো যাচ্ছেই আমার মা বাবা যেহেতু জব করতো তারা আমাকে দেখা যায় সময় দিতে পারছে না তখন আমার সময় কাটাতে হতো বাঙ্গালী বন্ধুদের সাথে তো দেখা যায় আমার বোন গুলো যারা রেগুলার আমাদের ভাষায় কথা বলে তারা রেগে গেলে হয়তো গা্রো তেই কথা বলতেছে কারন একটা মানুষ রেগে গেলে কিন্তু তার নিজের ভাষায় কথা বলে আমি হয়তো সেটা পারছিনা আমার ভাষায় কথা বলি তখন,যখন হয়তো সবাই একসাথে বসে আছি আর আমার কিছু গোপন কিছু কথা বলতে হচ্ছে তখন হয়তো আমার ভাষায় কথা বলছি।

 

খোশগল্প.কমঃটিভি খুললেই দেখা যায় বাংলা অনেক চ্যানেল,হিন্দী অনেক চ্যানেল,ইংলীশ অনেক চ্যানেল তো কখনো মনে হয় না-ইসসস আমার ভাষার বা আমাদের যদি একটা চ্যানেল থাকতো??
লিপাঃমনে হয় সবসময় মনে হয়,যখন ছোটখাটো কোন প্রোগ্রামে ডাকে বা টিভি প্রোগ্রামে বলে আমাদের নাচতে তখন আসলে কখনো টাকার ব্যাপার টা দেখিনা,ছুটে যাই এইভেবে যে আমাদের কালাচার টাকে আমরা তুলে ধরতে পারবো এই কারনেই কিন্তু আমরা যাই।আর এই একটা কারনেই খাঁটি,কষ্ট করি।একটা প্রোগ্রামের জন্য হয়তো,সেটা সেভাবে কেউ দেখেনা কিন্তু তারপর ও মনে হয় আমাদের কম্যুনিটিকে যে আমরা সবার সামনে তুলে ধরতে পারতেছি এটাই অনেক।

 

খোশগল্প.কমঃআসলে এই ব্যাপারটা মনে রাখা বা ফীল করা অনেক বড় একটা ব্যাপার তো গারো গান কী শোনা হয়?
লিপাঃহুম শোনা হয় কিন্তু গাওয়া হয় না।

 

খোশগল্প.কমঃআপনাদের ফেমাস সিঙ্গার এমন কারো নাম কী মনে পড়ে?
লিপাঃআসলে ফেমাস সিঙ্গার বলতে আমাদের গারো ভাষায় অনেক ভাগ আছে যেমন আচিক,মিগান,আতং মানে হচ্ছে আমাদের বাংলাদেশে মিনিমাম ৩০-৪০ টা ভাষা আছে এর মাঝে বেশি ব্যবহর হয় আচিক ভাষা মানে হল এটা দিয়ে আপনি যেকোন গারোদের সাথে কথা বলতে পারবেন মানে একটা কমন ল্যাঙ্গুয়েজ যেটা সবাই জানে আর একটা হল এলাকাভিত্তিক যেমন হল নেত্রকোনার ঐদিকে তারা হচ্ছে এক সাইড কথা বলে আচিক,এক সাইড হল মিগান আর এক সাইড আতং মানে একজন আরেকজনের ভাষা জানেনা এরকমই আমাদের একটা ভাষা আছে যেটার লিখিত রুপ আছে সেটা হল ভারতের তউরাগ নদীর পাশে একটা গারো কম্যুনিটি আছে তাদের ভাষাটা একটু কঠিন ওখানেই দেখা যাবে কিছু কিছু শব্দ আছে আমিও হয়তো বুঝিনা,ওই ভাষায় কথা বললে ব্যাপার একটু কঠিন হয়ে দাঁড়ায় আমাদের জন্যও বুঝতে।

 

খোশগল্প.কমঃআপনাদের এই ব্যাপার টা তো অনেকটাই তাহলে আমাদের dialect গুলোর মতোযেমন আমাদের মাঝেই একদম নোয়াখালীর ভাষা টা আমাদেরই বঝতে অসুবিধা হয়তো ব্যাপার যেটা দাঁড়ালো গান গুলো ওই ভাষায় গাওয়া হয়
লিপাঃহ্যা হ্যা আর বেশিরভাগ দেখা যায় ইন্ডিয়ার গান গুলোই বাংলাদেশে চলতেছে বা ওই গান গুলোই সবাই গাইতেছে বা ক্যাসেট বা সিডিতে করে বিক্রি হচ্ছে ওগুলো কিনেই শোনা হচ্ছে।

 

খোশগল্প.কমঃতো ফেমাস কয়েকজনের নাম যদি শুনতে চাই?
লিপাঃএক দাদা আছে ঢাবিরই ইতিহাস ডিপার্টমেন্টে পড়তো সম্ভবত।কিশোর ক্লোরিয়াস।দাদা খুব ভালো গান গায়।

 

খোশগল্প.কমঃসে কী এখনো গানের সাথেই আছে?
লিপাঃহ্যা দাদা এখনো গান করে।

 

খোশগল্প.কমঃতো অনেক কথাই হলো এখন সর্বশেষ যে প্রশ্নটা নিজের কালচারটা তুলে ধরতে আপনি যে ডিপার্টমেন্টে পরেন সেটা অনেক বেশি ফ্রুটফুল সম্ভবত তো এটার সাথেই কী সামনে আপনার কিছু করার ইচ্ছে আছে?
লিপাঃআসলে আমাদের এই ডিপার্টমেন্ট এর নাম শুনে যতো মডার্ন মনে হয় কিন্তু আসলে বাংলাদেশে এই সেক্টরে জব ফেসিলীটি একটু কম।যেমন আরো হচ্ছে সবাই ভাবে আমরা গারোরা একটু কম কথা বলি,কম স্মার্ট আবার নেপোটিজম বলেও কিন্তু একটা ব্যাপার আছে তো দেখা যায় ভাইভা বোরডে কথা বলতে গেলে জড়তা আমার আসতেই পারে কিন্তু দেখা যায় বাঙ্গালী একটা ছেলেই আমার থেকে খারাপ বলে বেশি মার্কস পেয়ে যাচ্ছে তো এটা নরমাল আজ আমি যদি একটা ভাইভা বোর্ডে যাই আমি নিজেই চাইবো একটা আদিবাসী ছেলে বা মেয়ে চান্স পাক।

 

খোশগল্প.কমঃআর আপনাদের কোঠার ও তো মনে হয় কিছু ব্যাপার আছে!
লিপাঃআছে,আমাদের বিবিএ তে স্টুডেন্ট ১২০০-১৩০০ সেখানে হয়তো কোঠায় চান্স পায় ১২-১৩ জন।

 

খোশগল্প.কমঃখুব বেশিতো না মানে যেমন শোনা যায় আরকি
লিপাঃনা খুব বেশিতো অবশ্যই না যেখানে মুক্তিযোদধা কোঠা থেকে চান্স পায় ৯০ জন।

 

খোশগল্প.কমঃআচ্ছা প্রশ্ন যেটা ছিলো যে কী করার ইচ্ছে নিজের কালচার নিয়ে?হোক সেটা নিজের ডিপার্টমেন্ট বাদে!আর আপনি যেহে্তু নাচ গান করেন মানে সাংস্কৃতিক অঙ্গনেও আছেন!
লিপাঃআমার বেসিকালী নাচ গান নিয়েই কিছু করার ইচ্ছে আছে অনেক সময় দেখা যায় অনেকে নিজের গারো পরিচয় টা দিতেও লজ্জা  পায়। এছাড়াও গান নাচেও এখন অনেক পার্থক্য চলে আসছে আগে যেগুলো ধীর লয়ে ছিলো এখন সেগুলো ফার্স্ট হয়ে গেছে সবকিছু বলা যায় মডার্ন হয়ে গেছে যেমনঃড্রেস আপ,মেক আপ,গেট আপ।একচুয়াল যে গারো ব্যাপার সেগুলো আর নাই সো ইচ্ছে আছে যে আগে আমরা যেরকম ছিলাম আর কিছু না হোক ওই ব্যাপারগুলোকেই ধরে রাখা।

 

খোশগল্প.কমঃমানে একদম আগের রিয়েল যে গারো ট্র্যাডিশন টা,সেটা ধরে রাখা……
লিপাঃকারন আমার পরের প্রজন্ম বা তার পরের প্রজন্ম যদি জানতেই না পারে আমরা কী বা আমাদের গর্বের বিষয় গুলো কী তাহলে তো আমরা হারায় যাবো এমনিতেই আমরা সংখ্যায় গুটিকয়েক।

 

খোশগল্প.কমঃতো নিজেদের বা নিজেকে নিয়েই সামনে কাজ করতে চান অনেক ভালো কিছু কথা বলছেন আপু যাই হোক অনেকক্ষণ কথা হলো অনেক ধন্যবাদ আপনাকে

 

Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterShare on LinkedIn0Pin on Pinterest0

মতামত