বুয়েট। অনেক তরুন তরুনীর স্বপ্নের জায়গা। সেই ক্যাম্পাস,হলের প্রতিটি জায়গা,ক্লাসরুম সব কিছু কে ধারন করছেন আকাশ দেবনাথ।

বুয়েটে এই মুহূর্তে একটা পরিচিত নাম আকাশ। বুয়েটের সাংস্কৃতিক পর্যায়ে নিজের জায়গা ধরে রেখেছেন গান গেয়ে। গান নিয়ে জিজ্ঞেস করতেই মুচকি হেসে বললেন কখনো গানই শিখেন নি। গানটা গাওয়া হয় শুধু শুনে।

আমার এখন পর্যন্ত সব পারফর্মেন্স এর ফিলই একই। আমি নার্ভাস থাকি।

লিখেছেন...admin...ফেব্রুয়ারী 17, 2016 , 5:09 পূর্বাহ্ন

akash

খোশগল্প.কম: কেমন আছেন?

আকাশ: এইতো ভালো।

 

খোশগল্প.কম: বুয়েটের সাংস্কৃতিক প্রোগ্রাম গুলোতে গানের বেলায় একটা চেনা নাম “আকাশ” তো গান কি ছোট থেকেই শিখতেন?

আকাশ: না আমি তো কখনো গানই শিখিনি।

খোশগল্প.কম: আসলেই?

আকাশ: এটা কেউ বিশ্বাস করেনা জানি আপনিও করবেন না।

 

খোশগল্প.কম: আপনি তো অনেক ভালো গান তো শিখলেন না কেন?

আকাশ: আসলে শিখতে চাইছিলাম কিন্তু বাসা থেকে বলল পড়াশুনায় সমস্যা হবে তাই আর শেখা হয়নি।

 

খোশগল্প.কম: স্টেজ পারফর্মেন্স কয়টা করা হইছে এই পর্যন্ত?

আকাশ: আগেতো করিনি। যা করার এই ক্যাম্পাসে এসেই করা হয়েছে।

 

খোশগল্প.কম: সব শুধু বুয়েটেই?

আকাশ: হ্যা। ১-১ এ করছিলাম প্রথমটা তারপর এক বছর গ্যাপ দিয়ে আবার ২-১ করছিলাম। লাস্ট একটা পারফর্মেন্স ছিলো শুধু শিষ বাজায় পুরো একটা গান কভার করা। এই ব্যাপারটা ভালোই প্রশংসা পাইছে যতদূর বুঝি।

 

খোশগল্প.কম: কোন ইন্সট্রুমেন্ট বাজানো হয় বা কোনটার প্রতি আলাদা কোন আগ্রহ?

আকাশ: গিটার শিখার ইচ্ছা আছে। লাস্ট একমাস ইউটিউব দেখে বাজাচ্ছি আর এমনিতে ইউকেলেলে বাজাই। ভালো লাগে।

 

খোশগল্প.কম: ফার্স্ট স্টেজ পারফর্মেন্সের ফিলটা কেমন ছিলো?

আকাশ: আমার এখন পর্যন্ত সব পারফর্মেন্স এর ফিলই একই। আমি নার্ভাস থাকি। ফাস্টে একটু বেশি থাকতাম এখন কম থাকি এই যা।

 

খোশগল্প.কম: বাসা থেকে কেমন এপ্রেসিয়েশন পান এখন?

আকাশ: বাসা থেকে তো এপ্রেসিয়েশন সব সময়ই ভালোই পেতাম। যদিও কেউ এখনো আমার কোন গান লাইভ শোনেনি তবে আমি স্টেজে গাবো এটা শুনেই অনেক খুশি হয়।

 

খোশগল্প.কম: আচ্ছা সুযোগ কখন কেমন কি আসে কেউ বলতে পারিনা ধরুন হুট করে কোন বড় সুযোগ পেলেন…….

আকাশ: যেমন…..

 

খোশগল্প.কম: ধরুন ওয়েলনোন কারো সাথে গান গাওয়ার সুযোগ বা কোন ব্যান্ডে ইনক্লুড হওয়ার সুযোগ….

আকাশ: সুযোগ পেলে তো ভালোই তবে আমি আগে গান শিখতে চাই যেহেতু আমার এক্ষেত্রে একাডেমীক কোন নলেজ নাই, তারপর ওদিক গুলোয় আগাতে চাই।

 

খোশগল্প.কম: গান শেখার সময় কিন্তু এখনও রয়েছে। শিখছেন না কেন? নাকি কমফোর্ট জোন এর ব্যাপার রয়েছে?

আকাশ: আগে যেমন বললাম আয়োজন করে কখনোই আমার গান গাওয়া বা শেখা হয়নি। শেখার ব্যাপারটা এখন আনতে চাইলেও হয় কখনো সময় হয়না, আর নয়তো সময় হইলেও সুযোগ হয়ে ওঠেনা।

 

খোশগল্প.কম: গান নিয়ে কোন মজার ঘটনা?

আকাশ: আমি এখন পর্যন্ত যা গাইছি বা চেষ্টা করছি তার ৯০% ই মূর্ছনায়। আর ওখানে সব ব্যাপারগুলোই অনেক মজার।

 

খোশগল্প.কম: মূর্ছনা বলতে বুয়েটভিত্তিক কোন সাংস্কৃতিক সংস্থা?

আকাশ: হ্যা এটাই বুয়েটের সেনট্রাল কালচারাল ক্লাব।

 

খোশগল্প.কম: বুয়েটেই পড়ার ইচ্ছা ছিল?

আকাশ: না তেমন না তবে কোন ভালো এক জায়গায় ভর্তি হওয়ার ইচ্ছা ছিলো। বিএইউ তে চান্স পেয়ে ভর্তিও হয়ে গেছিলাম। টেনডেন্সি ছিল বাসার পাশেই থাকব,ক্লাস করব।

 

খোশগল্প.কম: বাসা কি ময়মনসিংহ?

আকাশ: হ্যা।

 

খোশগল্প.কম: এখানে নিশ্চই হলে থাকা হয়!

আকাশ: হ্যা। আমি মনে করি ক্যাম্পাস এর ৮০% মজা হলো হলে। অনেক সিনিয়র ভাই,বন্ধু,জুনিয়র দের বন্ডিং এই ব্যাপারগুলো হল না থাকলে সম্ভব না।

 

খোশগল্প.কম: সবমিলিয়ে গানের জায়গাটা কোথায় তাহলে?

আকাশ: গান আমার শখের জায়গাতেই থাক। এই পর্যন্তই ভাবতেছি আপাতত আসলে অনেকদূরের চিন্তা কম করা হয়।

Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterShare on LinkedIn0Pin on Pinterest0

মতামত