মুনিরা মাহজাবিন মিমো, স্বপ্ন দেখেন একদিন অনেক বড় হবেন । তার স্বপ্ন, “অনেকক বড় হওয়ার ইচ্ছা। নিজের একটা আইডেনটিটি করা। এখন যেমন আম্মুর সাথে কোথাও গেলে ওর মেয়ে, বাবার সাথে গেলে ওর মেয়ে, বোনের সাথে গেলে ওর বোন। তখন সবাই আমাকে চিনবে। সবাই আমাকে নিজের নামে চিনবে”। আজ কথা বলব তার সাথে।

আমার ফ্যামিলি এবং ফ্রেন্ডরা আমাকে অনেক সাহায্য করেছে

লিখেছেন...admin...এপ্রিল 27, 2016 , 2:29 অপরাহ্ন

mm

খোশগল্প.কম: কেমন আছ?

মিমো: ভালো আছি।

 খোশগল্প.কম: তোমার এখনকার ব্যস্ততা কি নিয়ে?

মিমো: সি এফ এস নিয়ে ।

খোশগল্প.কম: আচ্ছা, সি এফ এস নিয়ে বিস্তারিত বল

মিমো: চিলড্রেন ফিল্ম সোসাইটি। প্রতিবছর ফিল্ম সোসাইটির উদ্যোগে পরিচালিত হয় শিশুদের ফিল্ম উৎসব। এবার হল নবম আন্তর্জাতিক চলচিত্র উৎসব। সেখানে আমি অডিটোরিয়ামে একজন ভলান্টিয়ার হিসাবে কাজ করছি সেটা নিয়ে ব্যস্ততা যাচ্ছে ।

খোশগল্প.কম: পড়ালেখার পাশাপাশি আর কি ধরনের কাজ নিয়ে ব্যস্ততায় আছ?

মিমো: স্বেচ্ছাসেবক মূলক কোন কাজ, নাচ, গান, স্কাউটিং।

খোশগল্প.কম: স্কাউটিং নিয়ে কিছু বল

মিমো: স্কাউটিং করতে ভালো লাগে। স্কাউটিং করি নিজের জন্য, অনেক কিছু শেখা যায়, অনেক মানুষের সাথে মিশা যায়। পুরো দুনিয়া তুমি দেখতে পারর যায় স্কাউটিং এর মাধ্যমে। আমি গতবছর স্কাউটিং থেকে জাপানে গিয়েছিলাম সম্পূর্ণ জাপানের স্কাউটের খরচে। ২৩ তম বিশ্ব জাম্বুরিতে এটেন্ট করতে।

খোশগল্প.কম: এগুলো করতে গিয়ে পড়ালেখার ক্ষতি হয়নি তোমার?

মিমো: নাহ, পড়ালেখার একটা নির্দিষ্ট সময় আছে, এগুলো করার একটা নির্দিষ্ট সময় আছে। পড়ালেখা পড়ালেখার জায়গায় আর কো-কারিকুলাম একটিভিটি এর জায়গায়।  এই জন্য ক্ষতি হয় না।

খোশগল্প.কম: বাসা থেকে কতটা সাপোর্ট পাও?

মিমো: অনেক বেশি।

খোশগল্প.কম: পড়াশোনা করছ কোথায়, কি নিয়ে?

মিমো: ফয়জুর রহমান আইডিয়াল ইন্সটিটিউশনে ক্লাস টেনে, কমার্স নিয়ে।

খোশগল্প.কম: কমার্স নিয়ে পড়া কি নিজের ইচ্ছায়?

মিমো: না, জে এস সির রেজাল্ট, বন্ধুদের কথা, তারপর ফ্যামিলির এবং আমার নিজের ইচ্ছায়।

খোশগল্প.কম: তোমার কি নেওয়ার ইচ্ছা ছিল?

মিমো: সবার মত সায়েন্স নেওয়ার ইচ্ছা ছিল। ডাক্তার হওয়ায় ইচ্ছা ছিল, ডেন্টিস্ট হওয়ার অনেক বেশি ইচ্ছা ছিল।

খোশগল্প.কম: তুমি তোমার একটা ড্রিম ফিক্সড করলা, তারপর জে এস সির রেজাল্টের পর তা আবার চেঞ্জ করলে, তোমার কি মনে হয় ড্রিম ফিক্সড করার ব্যাপারে?

মিমো: অবশ্যই উচিৎ ড্রিম ফিক্সড করে, সে অনুযায়ী কাজ করা।

খোশগল্প.কম: জে এস সি রেজাল্ট খারাপ হওয়ার পর নিশ্চয় অনেক মেন্টাল প্রেসার এ ছিলা?  ফ্যামিলি এবং ফ্রেন্ডরা কিভাবে তোমার সাপোর্ট করেছিল?

মিমো: ফ্যামিলি এন্ড ফ্রেন্ডরা অবশ্যই সাপোর্ট করে, কিন্তু আমি এখনও ঐ জে এস সির রেজাল্টের ধাক্কাটা সামলে উঠতে পারিনি। আমার সামনে এখনও কেউ জে এস সি র রেজাল্ট নিয়ে কথা বললে, আমি এটা সহ্য করতে পারি না। আমার ফ্যামিলি এবং ফ্রেন্ডরা তবুও আমাকে অনেক সাহায্য করেছে।

খোশগল্প.কম: পড়ালেখার পাশাপাশি অনেক কিছুই করছ, সেগুলো নিয়ে তোমার ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা কি?

মিমো: সেগুলোর সাথে ই যুক্ত থাকা। এগুলো ই আমাকে অনেক দূরে নিয়ে যাবে। এখন আমার যেই ড্রিম এগুলো পূরণের জন্য অনেক বেশি হেল্প করবে।

খোশগল্প.কম: তোমার মত যারা পড়ালেখার পাশাপাশি করতে চায়, তাদের ব্যাপারে তোমার মন্তব্য কি।

মিমো: অবশ্যই ভালো করবে। প্রথমে ফ্যামিলি থেকে পারমিশন নেও, তারপর কর। কোনরকম স্কুল পালায়ে কিংবা ক্লাস মিস দিয়ে এসব জায়গায় দৌড়াদৌড়ি করে লাভ নেই। পরিবারের সবাই পরে জানলে তুমি অনেক বদনাম পাবা। যদিও তুমি ভালো কাজের জন্য যাও তবুও। এই জন্য পরিবারের সাপোর্টটা দরকার। না দিলে বুঝিয়ে শুনিয়ে করার চেষ্টা কর, কিন্তু পারমিশন ছাড়া মোটেও না।

খোশগল্প.কম: ভবিষ্যতে কি হওয়ায় ইচ্ছা?

মিমো: অনেককক বড় হওয়ার ইচ্ছা। নিজের একটা আইডেনটিটি করা। এখন যেমন আম্মুর সাথে কোথাও গেলে ওর মেয়ে, বাবার সাথে গেলে ওর মেয়ে, বোনের সাথে গেলে ওর বোন। তখন সবাই আমাকে চিনবে। সবাই আমাকে নিজের নামে চিনবে।

Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterShare on LinkedIn0Pin on Pinterest0

মতামত