শাম্মী আক্তার, পড়ছেন অর্থনীতি ২য় বর্ষে।কথা বললেন বই পড়া, সাধু-চলিত, পারিবারিক আবহ বিভিন্ন বিষয় নিয়ে।

আমার মাঝে মাঝে মনে হয়েছে আমি পরিবারের সবার ছোট হওয়ায় মনযোগ কম পেয়ছি বড়দের তুলনায়

লিখেছেন...admin...জানুয়ারী 12, 2016 , 9:49 পূর্বাহ্ন

11988208_1888151661410506_5193354846114404802_n

 

খোশগল্প.কমঃ সাধু ভাষার বই কেমন লাগে তোমার কাছে?

শাম্মী-প্রথমে বুঝতে অসুবিধা হত, এখন বুঝতে পারি, তবে সাধু আর চলিত ভাষার মধ্যে প্রেফারেন্স দিলে চলিতটাই চুজ করবো।

খোশগল্প.কমঃ কেন?

শাম্মী-হ্যা, হয় বাট আমি যখন ক্লাস নাইনে পড়ি তখন রবীন্দ্রনাথের সাধু ভাষার একটা বই পড়া শুরু করি, শুধুমাত্র বুঝতে পারছিলামনা বলে ছেড়ে দিছি, এবং তখন মনে হয়েছে যে সাধু ভাষা কঠিন, তখন থেকে মনের মধ্যে ঢুঁকে গেছে যে সাধু ভাষা দূর্বোধ্য, তার পর থেকে আর আগ্রহ হয় নাই।ইভেন এখন পর্যন্ত রবীন্দ্রনাথ এর কোন বইই আমার পড়া হয় নাই।এখন শরৎচন্দ্রের ‘গৃহদাহ’ পড়া শুরু করেছি।

খোশগল্প.কমঃ রবীন্দ্র-শরৎ-সমরেশ বা ওই সময়ের উপন্যাস গুলোকে মোট দাগে এক কাতারে ফেলা যায়, যেমন সামাজিক-পারিবারিক আবর্ত অথবা দেশ-ভাগ, স্বাধীনতা-বিপ্লব কেন্দ্রিক, এর বাইরে এখন যেমন অনেক ধরনের গল্প আমরা পাই আগে তেমন ছিল না।তোমার কাছে এটা কি মনে হয়?

শাম্মী-অবভিয়াসলি, কারন তখন বাংলা সাহিত্যের আধুনিক যুগের কেবল শুরু, তো নতুন

ধারা কেবল শুরু হচ্ছে সে হিসেবে এত দ্রুত গোয়েন্দা-রম্য বা অন্য শাখা গুলোতে গল্প আসা সম্ভব ছিল না, এসেছে হয়তো তবে সেগুলো আলোচনায় আসার মত হয়তো না।

কিছুক্ষণ আগে বলছিলাম সাধু ভাষার কথা, এ প্রসঙ্গে একটা কথা বলতে পারি যে সাধু ভাষার যে অল্প কয়টা বই আমি পড়েছি সেই চরিত্রগুলো আমার অনেক দিন পর্যন্ত মনে ছিল, যেটা চলিত ভাষার কোন বই এর ক্ষেত্রে হয় নি।

খোশগল্প.কমঃ এরকম কেন?

শাম্মীঃ এটা হতে পারে আমি চলিত রীতির বই পড়েছি হূমায়ুন আহমেদ, রকিব হাসান শুধুমাত্র এদের। তো, পড়ার ক্ষেত্র যেহেতু অল্প, সো ভেরিয়েশন খুব বেশি না হওয়ায় সাধু ভাষা টা মনে থেকেছে, আরেকটা কারণ হতে পারে সাধু ভাষার মনে হয় আবেগটা বেশি ফুটিয়ে তোলা যায়, ততটা চলিত রীতিতে হয় না।

খোশগল্প.কমঃ এটা তো বইয়ের ব্যাপ্তি বেশী বলেও হতে পারে?অনেক সময় ধরে পড়ার কারনে ?

শাম্মী- না, এমন না।যেমন “আট কুঠুরী নয় দরজা” বই টা একদমই ছোট, বাট এটার চরিত্রের কারনেই আমার মনে আছে।

খোশগল্প.কমঃ কার লেখা?

শাম্মীঃ সমরেশ মজুমদার।

খোশগল্প.কমঃ সমরেশ মজুমদারের আর কি কি পড়েছো?

শাম্মীঃ কিছুদিন আগে কালবেলা, সাতকাহন পড়েছি।

খোশগল্প.কমঃ সমরেশ মজুমদারের লেখনী বা বই নিয়ে কিছু বল।

শাম্মীঃ ওনার এই ৩টা বইই আমি পড়েছি, এই ৩টা পড়ে মনে হয়েছে উনার লেখার সময়কাল গুলো মনে হয় দেশ-বিভাগ, নারীদের অংশগ্রহণ, রাজনীতি মানে তখনকার বিপ্লবী বিষয়গুলো।অন্য বই গুলো হয়তো অন্যরকম।

খোশগল্প.কমঃ তোমার মনে হয় না সাতকাহন বা এধরনের বইগুলো আমাদের আরো আগে পড়া উচিত, যেমন নাইন-টেনে ?

শাম্মীঃ হুম আমার মনে হয়, বাট সমস্যা হচ্ছে আমাদের অনেকের আব্বু-আম্মুরা এইগুলো পড়তে দেন না।ইভেন এখনো পর্যন্ত হাতে এই বই দেখলে কেন এই বই পড়ছি।

খোশগল্প.কমঃ এটা প্রায় কমন একটা সমস্যা, হূমায়ুন আহমেদ কড়ি দিয়ে কিনলাম বইটা এইটে থাকতে খাটের নিচে বসে শেষ করেছেন অথচ এই বইয়ে এমন কিছু নেই যেটা ওই বয়সে পড়া বারণ।

শাম্মীঃ হ্যা, আমার বাসায়ও আমার হাতে সুনীল-শরতের বই দেখলেই-কেন পড়ছি, যেমন আমার ভাইয়ার যুক্তি- সুনীল বড়দের বই লিখেন। আমি সুনীলের কোন বইয়ে এমন কিছু এখনো পর্যন্ত পাইনি।যেদিন প্রথম কাকবাবু সিরিজ শুরু করি সেদিনই এ কথা বলেছিলেন, অথচ কাকাবাবু সিরিজ হচ্ছে কিশোর উপন্যাস।

খোশগল্প.কমঃ এরকম কেন হয় বলে তোমার মনে হয়, উনি পড়েন না নাকি অন্য কিছু?

শাম্মীঃ উনি পড়েন তবে কম, ইংলিশ নভেল বই ই উনি বেশী পড়েন।উনি থাকলে আমাকে ইংলিশ বই আর পাশে ডিকশনারী নিয়ে আমাকে বসে থাকতে হয়।উনি শরৎ-সমরেশ এগুলো পড়তে দেন না।

খোশগল্প.কম; এরকম কেন- উনার নিজের যেহেতু পড়ার অভ্যাস আছে তো তোমাকে কেন উনি পড়তে দেন না?

শাম্মীঃ জানি না, যেমন আমার বাসায় আম্মুর সংগ্রহে অনেক বই আছে, কিন্তু সেগুলো আমাকে ধরার সুযোগ আমার ছিলো না, আম্মুর বই পড়ার শখ ছিল এক সময়, সংগ্রহেও ছিল অনেক, তো আমি যখন সেগুলো নিতে চাইতাম তখন বলতো এগুলো তোমার না, বড় হ। সেলফে তালা দিয়ে রাখতো। ওই বইগুলো কিন্তু আমি পড়েছি অল্প বয়সেই, সেক্ষেত্রে যদি একেবারে বই না দেয়া বা সেলফে তালা দেয়ার পরিবর্তে বয়স অনুযায়ী বই যদি অভিভাবকরাই ঠিক করে দিতেন তাহলে কিন্তু আমার জন্য আরো বেশী ভালো হতে পারতো। এখনো একই রকম করে।

খোশগল্প.কমঃ এখন তো তুমি বড় হয়ে গেছো, আর কখন ?

শাম্মীঃ জানি না।

খোশগল্প.কমঃ তোমার আব্বু-আম্মু বই পড়েছেন, রেডিও তে গান করেছেন বলেছো, তাহলে আসলে তোমার বেলায় এমন কেন হয়েছে ?

শাম্মীঃ স্পেসিফিক কারণ জানি না, তবে এরকম হতে পারে, আমি ছোটবেলা থেকেই হোস্টেলে থেকেছি, একদম ক্লাস ফাইভ থেকে, আর পরিবারের সাথে থাকা হয় নি, এই কারণেও আম্মু-আব্বুর সাথে দুরত্ব হয়ে গেছে, বড় হয়ে আমি আর দুরত্ব কমাতে পারি নাই।এতে করে যেটা হয়েছে আব্বু-আম্মুর যে বিষয়গুলোতে সায় নেই ওগুলো আমি একা একা করেছি।

খোশগল্প.কমঃ এইখানে তোমারও তো কিছু করার ছিলো

শাম্মীঃ কি করার ছিলো আমার! । এই ক্ষেত্রে তো আমার কিছু করার ছিল না।

খোশগল্প.কমঃ বড়রা কি মনযোগ পেয়েছে তোমার কাছে মনে হয়

শাম্মীঃ যেমন আমার বড় দুই ভাই-বোনই গান শিখেছে, আমি সেই সুযোগ পাই নি।

খোশগল্প.কমঃ সেক্ষেত্রে তোমার ভাই-বোনেরা তোমাকে সাপোর্ট করে নি?

শাম্মীঃ তেমন না, বড় ভাইয়া বই কিনে দিতো মাঝে মাঝে, তবে একটু বড় হওয়ার পর থেকে সবাই দূরে দূরে চলে গেছে কাজে, আমিও বাসায় থাকি নাই।

খোশগল্প.কমঃ তোমার দেখা কিছু প্রিয় ছবির নাম বল

শাম্মীঃ খুব বেশী ছবি দেখা হয় নি, শার্লক হোম সিরিজটা ভালো লাগে, এনিমেটেড মুভি ভালো লাগে।

 

ধন্যবাদ সময় দেয়ার জন্য।

 

Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterShare on LinkedIn0Pin on Pinterest0

মতামত