ফয়জুল হক রাফি। আর্মড ফোর্স মেডিকেল কলেজে চতুর্থ বর্ষে পড়াশুনা করছেন। আর্মিদের রুলস রেগুলেশন এর বাইরেও চান বেসিক কোন সেক্টরে স্পেশালিষ্ট হতে। অবসরে গান শুনেন,ফেসবুকিং করেন,বই পড়েন। জীবন নিয়ে বেশী উচ্চাশা নাই তার ,সাদাসিধা ভাবে সুখি জীবনযাপন করতে পারলেই হ্যাপি থাকবেন বলেন।

আমি একটু স্বাধীনচেতা মানুষ

লিখেছেন...admin...এপ্রিল 25, 2016 , 11:28 পূর্বাহ্ন

xp

খোশগল্প.কম: ব্যস্ত কি?

রাফি: কিছুটা তবে সমস্যা নেই।বলতে পারেন।

খোশগল্প.কম: কী করছিলেন?

রাফি: টিউশনি করালাম। ছাত্র এইচ এস সি দিচ্ছে।

খোশগল্প.কম: টিউশনি কয়টা করানো হয়?

রাফি: আপাতত একটাই। বাকি দুইটা আপাতত করাচ্ছি না।

খোশগল্প.কম: টিউশনি,পড়াশুনা একসাথে মেইনটেইন করা হয় কিভাবে?

রাফি: পড়াশোনা আর টিউশন? ক্লাস করে এসে বিকালে বা সন্ধ্যায় পড়াই, নাহয় ছুটির দিনগুলায় পড়াই।

খোশগল্প.কম: পড়াশুনা করছেন কোথায়?

রাফি: আর্মড ফোর্সেস মেডিকেল কলেজে,চতুর্থ বর্ষে।

খোশগল্প.কম: তার মানে তো ডাক্তার!!

রাফি: নাহ, এখনো অনেক রাস্তা বাকি।

খোশগল্প.কম: মেডিকেলই টার্গেট ছিলো তাহলে??

রাফি: একদমই না। ছোটবেলা থেকে সবসময় ডিটারমাইন্ড ছিলাম যে কখনো মেডিকেল বা আর্মি এই দুইটার কোন প্রফেশান এই যাবো না।

খোশগল্প.কম: এখন তো দুইটাই একসাথে…

রাফি: ভাগ্য বলতে পারেন।

খোশগল্প.কম: ছোটবেলার এই চিন্তার কোন স্পেসিফিক কারন ছিলো কি?

রাফি: আমি একটু স্বাধীনচেতা মানুষ। ডিসিপ্লিন বা দায়িত্ব নিয়ে চলতে হবে এরকম চিন্তা মাথায় আসলেই হাত পা ভয়ে শিরশির করে।

খোশগল্প.কম: তো ইচ্ছা কি ছিলো সব মিলিয়ে?

রাফি: ঢাকা ইউনিভার্সিটি বা বুয়েটে ইচ্ছা ছিলো বা এমন কোথাও যেখানে নিজের মনমত চলতে পারবো।

খোশগল্প.কম: নিজের মনমতো ব্যাপারটা কিছুটা স্বেচ্ছাচারী কি?

রাফি: কিছুটা না অনেকটাই।

খোশগল্প.কম: কিন্তু ব্যাপারটা কিছুটা নেগেটিভ কিনা….

রাফি: তাতো অবশ্যই। এই কারণেই পরবর্তীতে সিদ্ধান্ত পরিবর্তন।

খোশগল্প.কম: এখন ইঞ্জয় কেমন করা হয় পড়াশুনা?

রাফি: মেডিক্যাল এ পড়াশোনা আসলে এনজয় করার মত কিছু নাই। অনেক প্রেশার।

খোশগল্প.কম: আর কতদিন লাগবে শেষ করে বের হতে?

রাফি: ২০১৮ তে বের হবো ইনশাআল্লাহ। এরপর এক বছর ইন্টার্নিশিপ।

খোশগল্প.কম: কোন সেক্টরটিতে ভবিষ্যতে কাজ করার বা স্পেশালাইজড হওয়ার ইচ্ছা আছে??

রাফি: আর্মিতে আসলে ডক্টর হিসাবে জয়েন করতে হয় পোস্ট খালি আছে কোন সেক্টরে সেই হিসাবে। নিজের ইচ্ছার পাশাপাশি রেজাল্ট আর ভাগ্যও কাজ করে। তবে বেসিক কোন সাবজেক্টে যাওয়ার ইচ্ছা।

খোশগল্প.কম:বেসিক ব্যাপারটা যদি ক্লিয়ার করতেন…

রাফি: সার্জারি,মেডিসিন এরকম মূল বিষয়গুলো ছাড়া অন্যান্য সাবজেক্ট গুলো আরকি। যেমন বায়োকেমিস্ট্রি,প্যাথোলজি ইত্যাদি আরকি। তবে সুযোগ পেলে সার্জারি বা মেডিসিন এ চেষ্টা করে দেখবো, রেজাল্ট এর উপর ডিপেন্ড করে।

খোশগল্প.কম: আর্মিদের রুলস রেগুলেশন গুলো তো আপনাদের পুরোপুরি ফলো করতে হয় তাই না?

রাফি: হুম। পুরাপুরি বলতে ডিসিপ্লিনারি একশন গুলা মেইনটেইন করা ম্যান্ডাটরি।

খোশগল্প.কম: আর প্রফেশনে ঢুকলে এই ব্যাপারগুলো কেমন হয় তখন?

রাফি: প্রফেশানে ঢুকলে সবই মেনে চলা লাগবে।

খোশগল্প.কম: অবসরে কি করা হয়?

রাফি: গান শোনা, মুভি,সিরিয়াল দেখা,ফেইসবুকিং অথবা গল্পের বই।

খোশগল্প.কম: গান শোনা,মুভি,বই এইসবে কোন নির্দিষ্ট সেক্টরকে প্রায়োরিটি দেয়া হয়?

রাফি: বাংলা গান বেশি শোনা হয়,মুভি আসলে রোমান্টিক ছাড়া প্রায় সব রকমই দেখি আর বই এর ক্ষেত্রে হুমায়ুন আহমেদ, জাফর ইকবাল,সমরেশ বেশি পড়ি।

খোশগল্প.কম: কোন একটা মুভি এবং বইয়ের নাম যেটা অনেক ভালো লাগছে?

রাফি: হুমায়ুন আহমেদের জ্যোছনা ও জননীর গল্প আর মুভি আসলে আলাদা করে বলার মত মনে পড়ছে না।

খোশগল্প.কম: আপনার ফেসবুকে তনুকে নিয়ে একটা লেখা দেখেছিলাম এই ব্যাপারে কিছু বলতে চান?

রাফি: তনুকে নিয়ে কিছু লেখার আগে বিবেকের কোথায় যেনো যেয়ে আঘাত লাগে। তনুর মত শত শত মেয়ে এরকম ঘটনার শিকার হচ্ছে। কেউ কেউ সারাজীবন দগদগে ক্ষত নিয়ে বেঁচে থাকছে। হাজার হাজার মেয়ে রাস্তাঘাটে লাঞ্জনার শিকার হচ্ছে। মেয়েরা ঘরের বাইরে গেলে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে এই সংখ্যাটাও নেহায়েত কম না। দায়ী সেই আমরা পুরুষরাই। যেদিন মেয়েরা, আমার বোনরা, অন্য কারো বোন,মেয়ে,স্ত্রী নি:সংশয়ে ঘরের বাইরে যেতে পারবে সেদিন হয়তো কিছু বলতে পারবো। ততদিন শুধু তনু এবং তনুর মত হাজারো নারী যারা এরকম বর্বরতার শিকার হয়েছে তাদের কাছে মনে মনে ক্ষমা চেয়ে যাবো।

খোশগল্প.কম: এইসবের কোন কারন কি আপাতদৃষ্টিতে চোখে পড়ে?

রাফি: sex education এর অভাব। sex education কে এই দেশে ট্যাবু হিসাবে দেখা হয়। ধর্মীয় চেতনার অভাব,আর্থ সামাজিক কারণ,পারিবারিক সমস্যাও কারণ বলে আমি মনে করি।

খোশগল্প.কম: পর্ন সাইটগুলো বন্ধ করার উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে এটা কি এই ক্ষেত্রে উপকারি হবে কিছুটা?

রাফি: বলা মুশকিল। ইন্টারনেট এখন অনেক সহজলভ্য ঠিক তবে গোড়া থেকে কাজ না করলে পুরাপুরি ফল পাওয়া যাবেনা। courtesy begins at home. পারিবারিক পর্যায়ে শিশুকে ছোটবেলা থেকে উন্নত মানসিকতার করে গড়ে তুলতে হবে।

খোশগল্প.কম: মেয়েদেরতো মেয়ে বেশি মানুষ ভাবা হয় কম..

রাফি: এরকম চিন্তাভাবনা পরিবর্তন করতে হবে। এই ব্যাপারে নারীদের শক্ত অবস্থান নিতে হবে, প্রতিটি মাকে,প্রতিটা বোনকে তাদের সন্তান,ভাই এর দৃষ্টিভঙ্গি পরিবর্ত্ননে অগ্রনী ভূমিকা পালন করতে হবে।

 

Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterShare on LinkedIn0Pin on Pinterest0

মতামত