কিশোরগঞ্জের মানুষ, কথাও বলেন পুরোদস্তুর সিকান্দার বক্সীয় ঢঙে, নাম দেওয়ান গাজী, পেশায় শহীদ মিনার এলাকার চা-বিক্রেতা।খুব ছোটবেলায় বাবা মারা গিয়েছেন।আর সংসারজীবনে ২ ছেলে ২ মেয়ের পিতা। বয়স বাংলা মাসের হিসেবে ৪৫-৪৬. বয়স এর প্রশ্নে বলেছেন-‘হেইডা মামা একটা দুখখের ইতিহাস, আমার বাপ মরছে আমি হওনের আগে, আমার মায় কয় আমি ভাদ্র মাসে অইছগা, হে থিকা আমার মায় এমুনেই ভাদ্রে ভাদ্রে বয়স হিসাব কইর‍্যা রাখছেগা, ১-২ বছর বেশ-কম হইতে পারে, তার বেশি না, এমুনেই পুলাপানের বয়স ও হিসাব কইরা রাখছি’

 

কিরে বাজান তুমি পড়ালেহা ছাইড়া দেও, আমার তো অর্থ-সম্পদ আছে না, আমি অত টেকা দেলাই পারছি না

লিখেছেন...admin...জানুয়ারী 12, 2016 , 10:36 পূর্বাহ্ন

সাক্ষাতকার ২

 

খোশগল্প.কমঃ মামা চা কি শুধু এইখানেই বেচেঁন না আরও কোথাও ?

দেওয়ান- মামা কিছু অইবো না তো? ডর করে

 

খোশগল্প.কমঃ কিসের ডর

দেওয়ান- এই ধরেন কত মানুষরে তো ধইরা নিয়া গুম কইরা হালায়।

 

খোশগল্প.কমঃ আপনি কি কিছু করছেন যে আপনারে ধরে নিয়ে যাবে?

দেওয়ান -মামা কত মানুষই তো গুম অয়া যায়, কিছু করণ লাগে ?

 

খোশগল্প.কমঃ না মামা, এইরকম কিছু না।

দেওয়ান- মামা মনে করুইন যে আমি ত ঢাহাত থাহি্না, আইছি কিশোরগঞ্জ থন, ঢাহার চলন-বলন এহনো বুজঝি না।

 

খোশগল্প.কমঃ কিশোরগঞ্জ কই?

দেওয়ান- এইটা মামা নিকলী থানা।

 

খোশগল্প.কমঃ অইখান থেকে ঢাকায় আসছেন ক্যান?

দেওয়ান -গ্রামে তো ধরেন কাইম-কাইজ নাই, যা আছিল পানিতো ধুইয়া গেছে।এহন কুনু কাম-কাজ নাই, পুলাপানের লেহা-পড়া আছে, এডির লাইগাই কষ্ট-মষ্ট হইর‍্যা ঢাহায় থাহন লাগে।

 

খোশগল্প.কমঃ ছেলেমেয়ে কয়জন আপনার ?

দেওয়ান- আমার মামা ২ ছেলে, ২ মেয়ে।

 

খোশগল্প.কমঃ কে কিসে পড়ে?

দেওয়ান- বড় পোলারে কামে দিয়া দিছি, ছুড পোলায় মেট্রিক দিবো, বহু কষ্ট কইর‍্যা ১৭০০ ট্যাহা কাগজ-পত্র জমা দেওনের লাইগা লাগছে।

 

খোশগল্প.কমঃ রেজিস্ট্রেশন ?

দেওয়ান- কিতা হেইডা কইতে পারবাম না, তয় দেওন লাগছে।

 

খোশগল্প.কমঃ সামনের বছর না?

দেওয়ান- অই ত, সামনের ফাগুন মাসে।

 

খোশগল্প.কমঃ আর ছেলেমেয়ে ?

দেওয়ান- বড় মাইয়া কেবলে স্কুলে যাওন ধরছে আর ছুড মাইয়া হাপুড়া(হামাগুড়ি) দেয় কেবল।

 

খোশগল্প.কমঃ কবে থেকে ঢাকা আছেন?

দেওয়ান- আমি একেরে ম্যলা সময় কুনু সময় ঢাহা থাকছি না, ৬ মাস এনো থাহি, বাহি ৬মাস বাড়িত।

 

খোশগল্প.কমঃ এইভাবে থাকেন ক্যান?

দেওয়ান- ঢাহা থাহতে ভালা ঠেহে না, তারপরেও কিছু উপরি-কামাই এর লেইগা থাহি।

 

খোশগল্প.কমঃ বাড়িতে কিছু নাই জমি-জমা?

দেওয়ান- আছে অল্প কিছু, হেইডায় সারা বছর খাওন চলে না।বর্ষাকালে মনে করুইন সব তলায়া যায়, তহন তো কাম-কাইজ পাওন যায় না।

 

খোশগল্প.কমঃ জমি-জমা তলায় যায়?

দেওয়ান- অইরহম তলায় না, তয় আবাদ-ফসল অয় না, তহন কাম ও থাহে না।তহন ঢাহা আইয়া পড়ি, আইয়া কিছু দিন কাম-কাইজ কইরা আবার যাইগা।

 

খোশগল্প.কমঃ এই খানে যে চা বিক্রি করেন এইটাতে কি লাভ হয়?বেশি লাভ তো মনে হয় হয় না।

দেওয়ান- বেচা-কিনি ভালা থাকলে খায়া-দায়া মনে করুইন ২৫০-৩০০ ট্যাহা থাহে।

 

খোশগল্প.কমঃ এত অল্প লাভ ! তাইলে অন্য কাজ করেন না, রিকশা চালানো, কিংবা চা-পানের দোকান?

দেওয়ান- চা-পানের দোহান দিত চাইছিলাম, তা দিয়া পারছি না পুজির লেইগ্যা, আর বাবা আমরার তো ধরুইন বয়স অইছে, এই বয়সে এহন রিশকা চালান মেহনতের কাম না? রিসকা চালান তো কঠিন এর লাইগ্যা করছি না, শইলে কুলাইত না।

 

খোশগল্প.কমঃ বয়স হইছে কত ?

দেওয়ান- এই ধরুইন ৪৫-৪৬।

 

খোশগল্প.কমঃ বয়স বের করছেন কিভাবে?

দেওয়ান- হেইডা মামা একটা দুখখের ইতিহাস, আমার বাপ মরছে ছুড কালে, আমার ছুড এক ভাই আছিল।কষ্ট কইরা বড় হইছে।আমার মায় কয় আমি ভাদ্র মাসে অইছগা, হে থিকা আমার মায় এমুনেই পরতি ভাদ্রে ভাদ্রে বয়স হিসাব কইর‍্যা রাখছেগা, ১-২ বছর বেশ-কম হইতে পারে, তার বেশি না।

 

খোশগল্প.কমঃ আপনার মা বেচেঁ আছেন?

দেওয়ান- হ, আল্লাহ দিলে মা বাইচাঁ আছে, আমাগো লগেই থাহে।

 

খোশগল্প.কমঃ তাইলে বিয়ে করছেন কত বছর হইলো

দেওয়ান- পরায় ৩০ বছর।

 

খোশগল্প.কমঃ এইটাও কি অইভাবেই মনে রাখছেন?

দেওয়ান- হ, এমুনেই পুলাপানের বয়স ও হিসাব কইরা রাখছি।

 

খোশগল্প.কমঃ আপনি ভাই-বোনের মধ্যে বড় তাইলে ছোট বেলায় কিভাবে চালাইছেন? সংসার কি আপনি চালাইতেন?

দেওয়ান- হ, মাইনইষের জমির মাইধ্যে কাম করছিগা ।মাইনষেরে মজুরী ৩০০ দিলে আমারে ১০০ দিছে ১৫০ দিছে।

 

খোশগল্প.কমঃ ছোট বলে?

দেওয়ান- হ, সবার থন ছুট আছিলাম এর লাইগ্যা কিছু কইতে পারছি না।এমুনেই কাম কইরা খাওন লাগছে, মা-ভাইরে খাওয়ান লাগছে।

 

খোশগল্প.কমঃ তাইলে এখনো ত সেই কষ্টই করতেছেন

দেওয়ান- হ মামা, হেই কষ্টই, একটা পুলারে পড়াইতাছি মনে করুইন যে আমার জানের উপর দিয়া, খাইয়া না খাইয়া টাহা পাডান লাগতাছে, পুলায় কইছে “আব্বা ১৭০০ ট্যাহা জমা দেওন লাগবো”। এই ১৭০০ ট্যাহা কেমনে দিমু হেইডা কুল পাইছি না, আইজা ১৫ ডা দিন ধইরা খায়া না খায়া জমায়া টাহা পাডাইছি যে “বাজান জমা দেও।লেহা-পড়া তুমি কইর‍্যা যাও, তুমি ডিস্টাব দিও না, আমার জান আছে, আমি তুমারে টাহা দিয়া যায়াম”।আমার জানের উপর ছেরাডারে লেহাপড়া করাইতাছি।

 

খোশগল্প.কমঃ বড় ছেলেকে লেখা-পড়া না করিয়ে কাজে দিছেন তাইলে ওরে এত কষ্ট করতাছেন ক্যান?

দেওয়ান- কি করমু পুলারে যহন কই “কিরে বাজান তুমি পড়ালেহা ছাইড়া দেও, আমার তো অর্থ-সম্পদ আছে না, আমি অত টেকা দেলাই পারছি না” তহন কান্দে আর কয় “তাইলে আব্বা অতদূর আগগাইলেন ক্যারে, ওত দূর না নিতাইন”

খোশগল্প.কমঃ মানে ও করতে চায়, আগ্রহ আছে

দেওয়ান- হ, আগ্রহ তো আছিই, মাস্টাররা পর্যন্ত কইবো “তুমি মাইনষের বাড়িত কাম কইরা ছেড়াডারে লেহা-পড়া করাইবা, হ্যার লেহাপড়া লিজাল্ট ভালা”।

খোশগল্প.কমঃ হ্যা মামা ওরে যদি লেখা-পড়া করান তাইলে তো পরে ও অন্যগুলারেও দেখতে পারবে

দেওয়ান- হ, ।কিন্তু বাবা আমার শইলে যে কুলাইছে না।আমার শইলডা মনে করুইন খুবই দুর্বল।

খোশগল্প.কমঃ আপনি থাকেন কোন জায়গায় রাতে?

দেওয়ান- থাহি চরে।

খোশগল্প.কমঃ কোন চরে ?

দেওয়ান- কামরাঙ্গির চরে।

খোশগল্প.কমঃ আর চা কি এই জায়গায়ই বেচেন না আরো কোথাও?

দেওয়ান- এনো থাহি, টি.এস.সি  থাহি, ফুলার রুড থাহি, আর মিটিং-মিছিলে অইলে হেনো যাই।মিটিং-মিছিল অইলে মনে করুইন আমরার বেচা-কিনিডা ভালা অয়।

খোশগল্প.কমঃ বাড়িতে যান কতদিন পর পর ? 

দেওয়ান- মাসে ২ বার কইর‍্যা যাই।আবার ঈদ এর এক সাপ্তাহ আগে যাইমু গা, ১৫ দিন অইছে আইছি গা।

খোশগল্প.কমঃ ঈদে ঢাকায় থাকেন না?

দেওয়ান- না ।

খোশগল্প.কমঃ কেন, ঈদে বেচাঁ-কেনা হয় না?

দেওয়ান- হয়, তয় ধরেন ছুট পুলাপান আছে, সামনে বয়া একলগে এইডা আর’কি ভাল লাগে, পুলাপানের মনডা ছুড থাহে না, সামনে লয়া মনে করুইন একটা আনন্দ-বিলাস করলাম মনে একটা শান্তি থাহে।হ্যর লেইগ্যা যাইগা।

খোশগল্প.কমঃ ভবিষ্যত নিয়ে কিছু চিন্তা করছেন?

দেওয়ান- চিন্তা করছি বলতে মনে করুইন মাইয়া দুইডা আছে, এই দুইডারে ভাল কুনু হানে দিয়া দিবাম।

খোশগল্প.কমঃ দোকান-টোকান দেয়ার চিন্তা ভাবনা করেন না?

দেওয়ান- করি তো বাবা, আমরার তো হেই টেহা পুয়সা নাই যে একটা দোকান দেলাইবাম, বড় হওনের চিন্তা তো মামা বেকেই করে।

খোশগল্প.কমঃ মামা মেয়ে দেয়ার চিন্তা করছেন বললেন, পড়ালেখার চিন্তা করেন নাই?

দেওয়ান– হ, করছি তো মামা, যতদুর করাইতে পারি করামু, তারপরেও হ্যাগরে একটা ভবিষ্যত আছে না? ভবিষ্যতের চিন্তাও তো করণ লাগবো, এই চিন্তাই করছি আরকি।

খোশগল্প.কমঃ কত বছরে বিয়ে দিবেন ভাবছেন?

দেওয়ান- চিন্তা করছি ১৮-১৯ এর মইধ্যে বিয়া দেলাইবাম।

খোশগল্প.কমঃ আপনাদের অইদিকে যৌতুক দেইয়া লাগে কেমন?

দেওয়ান- যৌতুক দেওন লাগে লাখ, সোয়া লাখ কইরা।

খোশগল্প.কমঃ তখন এগুলা যোগাবেন কিভাবে?

দেওয়ান- আল্লহয় দিলে যোগান লাগবো। কিছু তো করণের নাই…….

 

মামা আমার ফুন আইছে, রমনায় মিটিং চলতাছে, হেনো যাওন লাগবো। আমি তইলে যাই।

খোশগল্প.কমঃ -আচ্ছা মামা।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterShare on LinkedIn0Pin on Pinterest0

মতামত