অর্জন এর পিছনে কষ্টের অবদান থাকে। আমার এখন পর্যন্ত সে অভিজ্ঞতা নেই । এখন পর্যন্ত সৃষ্টিকর্তা দুহাত ভরে দিয়েছেন বলতে পারেন”…….কথা হচ্ছিলো মাজহারুল কবির শয়নের সাথে,কথাগুলো এসেছিলো জীবনের দুইটি অর্জনের কথায়,জীবনের মানে জিজ্ঞেস করাতে এটাও বললেন জীবন সুন্দর কিন্তু কন্টকময়। পড়ছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে নৃবিজ্ঞান বিভাগে।বিতর্কে এবং রাজনীতিতে বিচরন সমানভাবে। ভবিষ্যত নিয়ে জিজ্ঞেস করতেই বললেন ফ্রিল্যান্সিং জীবনযাপন করতে চান। এছাড়াও নিজের সম্পর্কে বললেন কিছুটা রিজার্ভ,তার সম্পর্কে কারো ধারনা তিনি সহজে ভাঙেনন না সেটা হতে পারে ইতিবাচক আবার নেতিবাচক।

জীবন কণ্টকময় সুন্দর

লিখেছেন...admin...মার্চ 30, 2016 , 4:35 পূর্বাহ্ন

shayon

খোশগল্প.কম: বিতর্কের সাথে সরাসরি সম্পৃক্ততা কবে থেকে?

শয়ন: কলেজে । আমার এক বন্ধু কলেজের হয়ে একটি বিতর্ক প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করবে । টিম মেট পাচ্ছিল না । আমাকে ধরে নিয়ে বিতর্ক করায়।

খোশগল্প.কম: বিতর্কের সেই শুরুটাতো তাহলে শুভই ছিলো বলা যায়!!

শয়ন: বলা যায় । প্রথম আলো- প্রজন্ম বিতর্ক উৎসব ছিল সেটা। কুমিল্লা অঞ্চলের আঞ্চলিক বিতর্ক উৎসব । রানার্স আপ হয়েছিলাম কলেজ পর্যায়ে।

খোশগল্প.কম: এর পর তাহলে আর পিছনে ফিরে তাকাতে হয়নি!

শয়ন: সেরকম না । প্রথম বার বিতর্ক করেই বিতর্কের সাথে যে থাকার ইচ্ছা ছিল তা না । কলেজেও  আর করা হয় নি । পরে বিশ্ববিদ্যালয়ে এসে আবার শুরু  আর এখন আমি যত টা না  বিতার্কিক এর চেয়েও আমাকে বিতর্ক সংগঠক হিসেবেই লোকে বেশী চিনে।

খোশগল্প.কম: শুরুটা আন্ত:হল থেকেই?

শয়ন: শুরুটা হল থেকে । তবে নিজের বিভাগ থেকেও অনেক সাহায্য পেয়েছি । আমার হল ডিবেটিং ক্লাবের মত বিভাগের ক্লাব টাও দারুণ । দারুণ সাফল্য আছে ।

খোশগল্প.কম: কোন বিভাগ?

শয়ন: নৃবিজ্ঞান।

খোশগল্প.কম: ভার্সিটিতে এসে অনেকেই বুঝে উঠতে উঠতে সময় চলে যায় সেক্ষেত্রে কি বলবেন?

শয়ন: শুরু করার কোন সময় নেই । কেউ  স্কুল থেকে শুরু করে। কেউ কলেজ থেকে শুরু করে। কেউ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে শুরু করে । খেই হারানোটা মানুষের হয় অনুশীলনের অভাবে। অনুশীলনের মাধ্যমে সবই ফিরে পাওা যায়। এখন তো অনেক যায়গায় মিক্স আপ বিতর্ক হয় । সেখানে বিতর্ক থেকে অবসরের ১০/১৫ বছর পর ৩০/৩৫ বছরের অনেকেই বিতর্ক করে । তাদের দেখলে কিন্তু বোঝা যায় না বিতর্ক ছেড়েছেন অনেক দিন আগে ।

খোশগল্প.কম: “বিতর্ক সংগঠক” ব্যাপারটা যদি একটু খুলে বলতেন!

শয়ন: প্রথম বর্ষ থেকেই ডিবেটিং ক্লাবের নানা দায়িত্ব পালন করার সৌভাগ্য হয়েছে । প্রথমে সূর্যসেন বিতর্ক ধারা এবং নৃবিজ্ঞান ডিবেটিং ক্লাব উভয়েরই অর্থ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেছি । বর্তমানে দুটো ক্লাবেরই সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছি । সূর্যসেন বিতর্ক ধারার গত সেশনেও সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেছি। তাই বিতর্ক সংগঠক হিসেবে গত ৫ বছরে আমার ভালোই অভিজ্ঞতা হয়েছে।

খোশগল্প.কম: পুরো একটা হলের বিতর্ক ক্লাবের সভাপতিত্ব করা কিছুটা কি কঠিন?

শয়ন: না । তবে কেউ যদি হুট করে এসে পড়ে তাহলে তার জন্য কঠিন । আস্তে আস্তে অভিজ্ঞতা অর্জন করলে সবই সহজ।

খোশগল্প.কম: এছাড়াও হল ইউনিট ছাত্রলীগ এর সাংগঠনিক  সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করছেন……

শয়ন: হ্যা।

খোশগল্প.কম: সব কিছু একত্রে মেইন্টেইন করা হয় কিভাবে?

শয়ন: লেখাপড়া-নিজের ব্যক্তিগত পড়াশুনা-বিতর্ক সংগঠন-সেচ্ছাসেবী সংগঠন ইত্যাদির এক সাথে দায়িত্ব পালন করাটা কষ্টকর বটে। তবে ব্যক্তিগত কাজ বিসর্জন দিয়ে হলেও সংগঠনের জন্য সময় দিতে হয় , এটা সংগঠনের প্রতি দায়বদ্ধতা থেকে।

খোশগল্প.কম: নিজের ক্যারিয়ারও কি তাহলে এই সংগঠগুলোর সাথেই?

শয়ন: না । এই সংগঠনগুলিতে ছাত্র অবস্থার পর যুক্ত থাকার সুযোগ নেই।

খোশগল্প.কম: সেক্ষেত্রে প্রফেশন হিসেবে এগিয়ে থাকবে কোন ফিল্ডটি?

শয়ন: সেটি এখনো সেভাবে ঠিক করা হয়নি। তবে ব্যবসায়ী কিংবা নৃবিজ্ঞানী হওার ইচ্ছা। এক কথায় ফ্রিল্যান্স জীবন যাপন।

খোশগল্প.কম: ফ্রিল্যান্স জীবন কি একটা সিকিউর লাইফ দিতে পারে?সবাই যেমনটা চায়?

শয়ন: হ্যাঁ  সিকিউর লাইফ দিতে পারে । ব্যবসায়ীদের মত সিকিউরড লাইফ কে লিড করে বলুন !!! সবাই এখন যেটা চায় সেটা হল কাগুজে সার্টিফিকেট, ভালো চাকুরী,ভালো বিয়ে,বেড রুম কেন্দ্রিক জীবন – মোট টোটাল সেফড সিকুর লাইফ । কিন্তু এর বাইরে ও তো জীবন আছে এখন তো বিশ্বের সামনে যারা সবাই ফ্রিল্যান্স।

খোশগল্প.কম: জ্বি তা অবশ্যই।লেখালেখিও করেন বোধয়……

শয়ন: এখন পর্যন্ত যা লেখালেখি করি সব নিজের জন্য । ব্যক্তিগত সংগ্রহে থাকে । কিছু মাঝে মাঝে ফেসবুকে প্রকাশ করি। আগে ছদ্মনামে ব্লগ লিখতাম । ভবিষ্যতে লেখালেখির আগ্রহ আছে।

খোশগল্প.কম: লেখালেখিতে কোন স্পেসিফিক সেক্টর কি প্রাইওরিটি পায়?

শয়ন: না। রাজনীতি-সমাজ-ক্রীড়া যা ই হোক না কেন বিশ্লেষণ করতে ভালো লাগে । ধরে নিতে পারেন বিশ্লেষণ ধর্মী লেখায় আগ্রহ বেশী । তবে মাঝখানে একটা স্পোর্টস পোর্টাল ছিল আমার ঢাকা স্পোর্টস ২৪ নামে । আমি নিজেই সম্পাদক ছিলাম । পরে অর্থাভাবে বন্ধ হয়ে যায় , ভবিষ্যতে অবশ্য ক্রীড়া নিয়ে লেখার আমার আগ্রহ নেই।

খোশগল্প.কম: খেলার বিষয় যখন আসলোই তখন আপাতত বাংলাদেশ ক্রিকেট নিয়ে কিছু শুনতে চাই।

শয়ন: বাংলাদেশ ক্রিকেট এখন খুব ভালো জায়গায় আছে। এটা গত ১০ বছরের প্ল্যানিং এর ফসল। একসময় যখন বলা হত বাংলাদেশ দলে যখন ৪/৫ জন একশ ওয়ানডে খেলা খেলোয়াড় থাকবে তখন ভালো খেলা শুরু করবে । এখন কিন্তু তার ই ফল দেখতে পাচ্ছি লিমিটেড ওভার ক্রিকেটে । টেস্ট ক্রিকেটে এখনো অনেক পিছিয়ে আছি। কম টেস্ট খেলার কারণে, ঘরোয়া প্রথম শ্রেণীর আসরও তার আরেক টা কারণ ।

 খোশগল্প.কম: আর সবচেয়ে আলোচিত তাসকিন সানীর বোলিং একশন?

শয়ন: এর আগেও ঘরোয়া ক্রিকেটে সানির বোলিং একশন প্রশ্নবিদ্ধ হয়ে ছিল । কিন্তু এখন পর্যন্ত তাসকিন এই পর্যন্ত প্রশ্নের শিকার হয়নি । এবারই প্রথম । এর পর অভিযোগ উঠেছে চেন্নাইয়ের পরীক্ষাগারে আইসিসি সঠিক নিয়ম অনুসরণ করেনি । এটি নিঃসন্দেহে বাংলাদেশের ক্রিকেট দলের জন্য বড় ধাক্কা । গত কয়েক মাস তাসকিন দারুণ বল করেছে।

খোশগল্প.কম: জীবনে এখন পর্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ দুইটি অর্জন যদি বলতে বলি?

শয়ন: নেই। অর্জন এর পিছনে কষ্টের অবদান থাকে। আমার এখন পর্যন্ত সে অভিজ্ঞতা নেই । এখন পর্যন্ত সৃষ্টিকর্তা দুহাত ভরে দিয়েছেন বলতে পারেন।

খোশগল্প.কম: জীবন সুন্দর??

শয়ন: হ্যাঁ  জীবন কণ্টকময় সুন্দর !

খোশগল্প.কম: কন্টকময়………..

শয়ন: হ্যাঁ । আপনার অনেক বাঁধা পেরোতে হবে । এক কথায় জীবন সুন্দর কিন্তু মসৃণ না।

খোশগল্প.কম: নিজেকে নিয়ে সংক্ষেপে যদি কিছু বলতে বলি…...

শয়ন: এটা একটু টাফ। আমি সাধারণত নির্বিকার থাকি। কিছুটা রিজার্ভ। জয় করার ইচ্ছা নিজের মাঝে প্রবল। মানুষের আমার প্রতি ভুল ধারণা থাকলে আমি তা ভাঙ্গি না । বরং মজা লাগে । তবে আমি উচ্চভিলাষী।

 

Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterShare on LinkedIn0Pin on Pinterest0

মতামত