ফরিদুল আহাসান সৌরভ। ক্যাম্পাসে জনপ্রিয় ও পরিচিত একটি নাম। খুব সময়েই নিজেকে পরিচিত করে ফেলেছেন শর্ট ফিল্ম মেকার এবং সে মোতাবেক অভিনব কিছু আইডিয়া নিয়ে।ইতিমধ্যে সেগুলো সুনাম কুড়িয়েছে দেশ ও বিদেশ প্রাঙ্গনে। তবে কাজটি করে চলেছেন শখের বসে সে নিজেই বললেন মেইন্সট্রিম কোন কাজ করার ইচ্ছা নাই।

নিজের চিন্তাভাবনাকে ভিজুয়ালাইজ করি নিজের আনন্দের জন্য

লিখেছেন...admin...জুন 26, 2016 , 9:40 পূর্বাহ্ন

sr

খোশগল্প.কম: internationally আপনার একটা শর্ট ফিল্ম মনোনীত হয়েছে শুনলাম!

সৌরভ: এখন পর্যন্ত ৩টা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব এ মনোনিত হয়েছে।

খোশগল্প.কম: নাম কি সেগুলোর?

সৌরভ: এক্সপেরিমেন্টাল শর্ট ফিল্ম CHESS যার মূল বিষয় ছিল সামাজিক শ্রেণী এবং বর্ণবাদ।

খোশগল্প.কম: কোন চলচিত্র উৎসব এ?

সৌরভ:Ozark shorts, USA, Say it loud, USA, Cinephone international short film festival, Spain- Officially selected এই তিনটাতে

খোশগল্প.কম: এটা নি:সন্দেহে অনেক বড় একটা প্রাপ্তি কি বলেন?

সৌরভ: হাহাহা না তেমনটা নয়। প্রাপ্তি হিসেবে খুব বড় বলে মনে হচ্ছে না। তবে আত্মসন্তুষ্টি অনেক।

খোশগল্প.কম: শেষ কাজটি তো তবে অনেক বেশি পরিপূর্ন…

সৌরভ: হ্যা। কিছুটা। যথাসাধ্য চেষ্টা মাত্র।

খোশগল্প.কম: প্রতিবন্ধকতা কেমন ছিলো?

সৌরভ: মূল প্রতিবন্ধকতা আর্থিক এবং কারিগরি সহায়তার ক্ষেত্রে। তবে ছাত্রাবস্থায় সময়ও কখনও কখনও প্রতিবন্ধক হয়ে দাঁড়ায়।

খোশগল্প.কম: সেগুলোকে কাটিয়ে ওঠা হয়েছিলো কিভাবে?

সৌরভ: ঐ তো টিমওয়ার্ক আর কিছুটা সেক্রিফাইস।

খোশগল্প.কম: সেক্রিফাইস গুলোর জন্য অন্য সেক্টরে ভোগান্তিও তবে কম নয়!

সৌরভ: হ্যা কখনো কাজের সাথে আবার কখনো নিজের সাথে। ব্যাপারটা এখন স্বাভাবিকই হয়ে গেছে।সৌরভ: সর্বপ্রথম কাজটি ছিল It’s experimental. মূলত প্রথম কাজ বলেই এমন নামকরন। আবার স্ক্রিপ্টের সাথেও নামটি সামঞ্জস্যপূর্ণ। এখানে জীবনের উত্থান পতন তুলে ধরা হয়েছে এক লেখকের লেখনীর মাধ্যমে।২০১৩ সালে এটি করা। এতে আমার সাথে আরেকজন ছিল ডিরেকশনে। হোসাইন আহমেদ সোহান।

খোশগল্প.কম: কাজ করেছিলো কারা?অভিনয়ে?

সৌরভ: প্রথম কাজে সবাই ই ক্যাম্পাসের ছিল। সবাই ই Dhaka university film society এর ছিল তখন।শশী, নাভিদ (অর্থনীতি), রাফাত (মৃত্তিকা, পানি, পরিবেশ), বৈজয়ান্তি,তিতলী, শাম্মী (চারুকলা), সেঁজুতি (ইসলাম শিক্ষা) এবং মূল চরিত্রে ছিল ওয়াহিদ কায়সার তুষার (ইংরেজী) অভিনয়ে আরেকজন ছিল জাহিদ (সঙ্গীত)

খোশগল্প.কম: তাদের একত্রিত করে একটা কাজ দাঁড় করানো….কঠিন ছিলো না?

সৌরভ: হ্যা। কঠিন তো ছিলই। তবে বন্ধুত্বটা এক্ষেত্রে খুব জরুরী। কাজের ক্ষেত্রে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হচ্ছে পারস্পরিক বোঝাপড়া।

খোশগল্প.কম: প্রথম শর্টফিল্ম করার পরিকল্পনা কি আগে থেকেই ছিলো, না হুট করে?

সৌরভ: কলেজে থাকা অবস্থাতেই ছিল। তারপর ভার্সিটিতে এসে সমমনা বন্ধুদের পেয়ে কাজটি করা হয়ে উঠে।

খোশগল্প.কম: প্রথম কাজটি যখন বের হলো অনুভূতি কেমন ছিলো সব মিলিয়ে?

সৌরভ: এক কথায় অসাধারণ। তবে ঐ শর্টফিল্মটার প্রিমিয়ার হয় গতবছরে নর্থসাউথ ইউনিভার্সিটির আন্তঃবিশ্বদ্যালয় চলচ্চিত্র উৎসব।

খোশগল্প.কম: কেমন সাড়া পেয়েছিলেন?

সৌরভ: বেশ ভালো। প্রথম কাজ হিসেবে প্রত্যাশার থেকেও বেশী।

খোশগল্প.কম: মোট কয়টি শর্টফিল্মের কাজ করেছেন?

সৌরভ: ছয়টি। সপ্তমটির কাজ চলছে।

খোশগল্প.কম: সর্বশেষটি  কী নিয়ে?

সৌরভ: সর্বশেষটি ডকুমেন্টারি ফিল্ম। পুরান ঢাকা নিয়ে।পুরান ঢাকার স্থাপনা, সংস্কৃতি, উত্সব এবং জীবনযাত্রা নিয়ে এ ডকুমেন্টারি। নাম Soul of a city.

খোশগল্প.কম: আপনাদের নিজস্ব প্রোডাকশন হাউস আছে সম্ভবত!

সৌরভ: হুম। আছে। পিনিক প্রোডাকশন। পিনিক বলতে মগ্ন থাকা কিংবা আচ্ছন্ন থাকাকে বুঝানো হয়েছে। শব্দটি প্রচলিত তবে অভিধান বহির্ভূত। চলচ্চিত্র অনুরাগী কয়েকজন মিলে আমাদের এ প্রোডাকশন।

খোশগল্প.কম: একটু অদ্ভুতই নামটা!

সৌরভ: হাহাহা, আমাদের কাজগুলোও প্রচলিত ধারার কিংবা খুব বেশী সাধারণ হয় না। একটু অদ্ভুত করার একটা প্রচেষ্টা থাকে।

খোশগল্প.কম: সম্প্রতি রুমানিয়ায় chess নিয়ে আরেকটি নমিনেশন পেয়েছেন মনেহয়!!

সৌরভ: জি। রুমানিয়ার একটি আন্তঃর্জাতিক চলচ্চিত্র উত্সব হচ্ছে 12 months film festival. যেখানে ভোটিং এবং বিচারকদের স্কোরিং এর ভিত্তিতে শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্র নির্বাচিত হয়। বিভিন্ন ক্যাটাগরির চলচ্চিত্র এ প্ল্যাটফর্মে অংশ নিতে পারে। এবারের আয়োজনে প্রায় ৪৪টি দেশ থেকে ১২০ টির মত চলচ্চিত্র অফিশিয়ালি সিলেক্টেড হয়। যার মধ্যে বাংলাদেশ থেকে আমার এক্সপেরিমেন্টাল ফিল্ম CHESS এটি ছিলো বর্নবাদ নিয়ে সেটি স্থান পায়্। ভোটিং শুরুর পর থেকে এখন পর্যন্ত বাংলাদেশ ও আমার এ ফিল্মটির (CHESS) নাম শীর্ষস্থান রয়েছে (155votes) । দ্বিতীয় অবস্থানে আছে যুক্তরাষ্ট্র ও চিলির যৌথ প্রযোজনার চলচ্চিত্র Apple taste (149 votes), এবং তৃতীয় স্থানে মেক্সিকোর Cruel pardon (104 votes) ।

খোশগল্প.কম: অবসর কাটে কেমন?

সৌরভ: বাসায় থাকলে অবসরে মুভি দেখা হয়। আর বন্ধুদের সাথে আড্ডা বাজি চলে ক্যাম্পাসে।

খোশগল্প.কম: ভালো লাগে কি করতে?

সৌরভ: প্রিয় শখ ফিল্ম দেখা, শেখা, বুঝা। আর আশেপাশের মানুষদের নিয়ে এক্সপেরিমেন্টাল ফিল্ম বানানোর চেষ্টা করা।

খোশগল্প.কম: এমন কিছু আছে যা নিয়ে কাজ করার ইচ্ছা সামনে?

সৌরভ: ছোটবেলায় একটা ইচ্ছা ছিল টানা কয়েকদিন সারাদিনরাত ঘুমানোর। কিন্তু এ ইচ্ছাটা আজও পূরন হয়নি। ভবিষ্যতে কখনো হবে বলেও মনে হয় না।

খোশগল্প.কম: ফিল্ম মেকিং নিয়ে কাজ করার ইচ্ছা সামনে আরো কতদূর?

সৌরভ: এইতো যতদিন ইচ্ছা থাকবে করব। মেইন্সট্রিম কাজ করার খুব একটা ইচ্ছা নেই। শখের বশেই ফিল্ম মেকিং করা। নিজের চিন্তাভাবনাকে ভিজ্যূয়্যালাইজ করি নিজের আনন্দের জন্য।

খোশগল্প.কম: মানুষ হিসেবে নিজের কাছে নিজের রেটিং কেমন?

সৌরভ: মানুষ হিসেবে নিজেকে নিজে ৭.৫০ দিব। এখন পাল্টা প্রশ্ন আসতে পারে যে কেন ৭ কিংবা ৮ নয়, কেন ৭.৫০?আমার উত্তর ও প্রস্তুত। আমি ৮ বললেও হয়ত কেউ না কেউ আমাকে প্রশ্ন করতে পারে কেন ৭.৯ কিংবা ৮.১ নয়? হতে পারে এইরকম প্রশ্নকারীর সংখ্যা দূর্লভ। তবে শঙ্কা তো থেকেই যায়। তখন তাকেই বা কি ব্যাখ্যা দিব!

Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterShare on LinkedIn0Pin on Pinterest0

মতামত