সেলিনা খানম, ২০ বছর ধরে শিক্ষকতা করছেন ফাইজুর রাহমান আইডিয়াল ইনন্সিটিউটে । শিক্ষকতা কে নেশা ও পেশা দুই টাই ভাবেন তিনি। জীবনের শেষদিন পর্যন্ত শিক্ষকতা করে যেতে চান।

রাস্তায় যখন ছাত্রদের সাথে দেখা হয় তখন এরা সবাইকে দেখায় এটা আমার শিক্ষক

লিখেছেন...admin...ফেব্রুয়ারী 15, 2016 , 5:51 পূর্বাহ্ন

khanom

খোশগল্প.কম: আস্লামুলাইকুম আপা, কেমন আছেন ?

সেলিনা: ভালো আলহামদুল্লিহা, ভালো আছি।

 

খোশগল্প.কম: আপনার পরিচয়টা যদি একটু দিতে বলি ?

সেলিনা: আমি একটা স্কুলের সিনিয়র শিক্ষক ।

খোশগল্প.কম: কত বছর ধরে শিক্ষকতা করছেন ?

সেলিনা: তা প্রায়ই ২০ বছর।

 

খোশগল্প.কম: আপনার বয়স কত ?

সেলিনা: আমার বয়স ৫৬ বছর।

 

খোশগল্প.কম: এত বছর ধরে শিক্ষকতা করছেন, এ ব্যাপারে আপনার অনুভূতি কেমন ?

সেলিনা: আমার ভালোই লাগে, ছোট ছোট বাচ্চাদের কাছ থেকে অনেক কিছু শিখা যায়, অনেক নতুন নতুন কিছু শেখতে পারি আমি, ওদের ও অনেক কিছু শিখানো যায়। ওরা আমাদের খুব মান্য করে, আমার যা বলি তাই করে, আমাদের কথার বাইরে ওরা যায় না। আমাদের কে গুরু মানে, এটাই আমার অনেক ভালো লাগে ।

 

খোশগল্প.কম: শিক্ষকতা কি, শখ না পেশা ?

সেলিনা: এটা আমার পেশা নেশা ২ টাই।

 

খোশগল্প.কম: ছোটবেলা থেকেই কি শিক্ষক হতে চাইতেন ?

সেলিনা: না, আমার বাবা ডাক্তার ছিলেন, তাই মেডিকেল এ পড়ার ইচ্ছা ছিল, আর নতুবা সরকারী চাকরী করার ইচ্ছা ছিল। কিন্তু প্রস্তুতির অভাবে মেডিকেল এ পড়া আর হয় নাই ।

 

খোশগল্প.কম: তাহলে সরকারী চাকরী করলেন না কেন ?

সেলিনা: আমরা যখন পাস করে বের হলাম, তখন ২ বছর সরকারী চাকরী আর বি.সি.এস দেওয়া বন্ধ ছিল। তাই এসব থেকে ফিরে শিক্ষকতায় আসা।

 

খোশগল্প.কম: তাহলে শিক্ষকতা কেই কেন বেছে নিলেন, অন্য কোন পেশা নয় কেন ?

সেলিনা: অনেক কারণ ছিল। এটা যেহেতু সেবা মূলক কাজ, সেটা তো আর সরকারী চাকরীতে গেলে হত না হয়তো। আমি যেহেতু নিঃসন্তান, একটা ছোট বাচ্চা কে যদি আমি আমার মত করে গড়ে তুলতে পারি তাহলে সেবা ও হল শিক্ষা ও দেওয়া হল । এই সব কারণে আমি শিক্ষকতায় আসি ।

 

খোশগল্প.কম: আপনি পড়ালেখা শেষ করেছেন কোথায় থেকে ?

সেলিনা: আমি বি.এস.সি করেছি সাইন্স থেকে আর মাস্টার্স করেছি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আর্টস থেকে ।

 

খোশগল্প.কম: আপনার সংসার জীবনের গল্প বলেন ?

সেলিনা: আমি সংসার জীবনে সুখী, আমি আর আমার স্বামী মিলেই তো আমার সংসার। সে অসুস্থ, সে এখন কিছু করতে পারে না। আমি তাকে সব খরচ দিয়ে চালাই। সে খুব হেল্প-ফুল, আমার কখনো ও মনে হয় নাই সে কিছু করে না। আমার এসব কিছু মনে হয় না, সে আমার পাশে আছে এইটাই আমার কাছে অনেক কিছু, অনেক বড় ব্যাপার ।

 

খোশগল্প.কম: এই শেষ বয়সে স্বভাবত যে ইচ্ছা থাকে, ছেলে মেয়ে দেখবে। কিন্তু আপনারা তো একা, এ ব্যাপার টা কিভাবে দেখেন ।

সেলিনা: আমি মনে করি আল্লাহ মানুষ কে সৃষ্টি করেছেন একটা অনুভূতি নিয়ে, আমাকে নিয়ে আল্লাহর একটা নিজস্ব একটা প্লান আছে। আমি সব কিছু আল্লাহর উপর ছেড়ে দিয়েছি ।

 

খোশগল্প.কম: আপনার এই সংসার জীবন নিয়ে কোন আক্ষেপ নেই ?

সেলিনা: না, আমার কোন আক্ষেপ নেই। আমার স্কুল জীবন, আশেপাশে সবাই কে নিয়ে ভালোই আছি ।

 

খোশগল্প.কম: একটু শৈশবের গল্প বলেন ?

সেলিনা: ছোটবেলায় আমি খুব দুষ্ট ছিলাম, কোন কাজ করতে চাইতাম না । খুব অলস ছিলাম, মা সারাদিন আমাকে এই জন্য বকা দিত। আমি বলতাম মা আমার রেজাল্ট ঠিক হলে তো আর সমস্যা নাই। মা ঠিক ই দেখত আমি ফাস্ট হতাম, আমি কিন্তু তার প্রতিদান পেতাম না। একবার আমার মা, আমার ভাই আর আমাকে বললেন যে, বার্ষিক পরীক্ষায় তোমাদের মধ্যে যে প্রথম হবে তাকে গিফট দেওয়া হবে। আমি কিন্তু এবার ও ঠিকই প্রথম হলাম, আমাকে কোন গিফট দেওয়া হয় নাই। এটা আমার পরিবারের উপর খুব আক্ষেপ আমার, আমার ভাইকে অল্প কিছুতেই তখন প্রশংসা করা হত। অথচ আমার কোন কিছুর মূল্য দেওয়া হত না ।

 

খোশগল্প.কম: যারা জীবনে অনেক ছোট খাট বিষয় নিয়ে হতাশ হয় তাদের আপনি কি বলবেন ?

সেলিনা: আল্লাহ তায়ালা সবকিছুর ধারক বাহক, এটা মনে করলে আর কোন আক্ষেপ থাকবে না। যা করেন আল্লাহ তায়ালা করেন।

 

খোশগল্প.কম: আপনি শিক্ষক হিসেবে কতটা সফল ?

সেলিনা: আমি মনে করি অতটা সফলতা পাই নাই, তবে যখন দেখি এরা আল্লাহর রাস্তায় আছে তখন দেখে খুব ভালো লাগে। রাস্তায় যখন ছাত্রদের সাথে দেখা হয় তখন এরা সবাইকে দেখায় এটা আমার শিক্ষক, যত টা সম্মান করে বুকটা ভরে যায়, তখন নিজকে সফল মনে হয় ।

 

খোশগল্প.কম: আপনি যে স্কুলে শিক্ষকতা করছেন সে স্কুলে আপনি কতটা সহায়তা পাচ্ছেন ?

সেলিনা: এটা অনেক সুন্দর পরিবেশ, বাড়ির থেকে ভালো পরিবেশ এখানে। সবাই একে অপরের সাহায্যের জন্য এগিয়ে আসে। কারো প্রতি কারো হিংসা বিদ্বেষ নাই।

 

খোশগল্প.কম: জীবনে আপনার চাওয়া পাওয়া কি সামনের দিন গুলোতে ?

সেলিনা: জীবনে আমার চাওয়া পাওয়া বেশী কিছু না, আমি কাজ ছাড়া থাকতে পারব না। আল্লাহর কাছে আমার একটাই চাওয়া যেন আমি শেষ দিন পর্যন্ত শিক্ষকতা করে যেতে পারি ।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterShare on LinkedIn0Pin on Pinterest0

মতামত